প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] জবিতে মেধাবৃত্তি পাবেন স্নাতক প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থীরা

জবি প্রতিনিধি: [২] জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের বৃত্তি নীতিমালা-২০১৩ এর আলোকে স্নাতক প্রথম বর্ষে অধ্যয়নরত (২০১৯-২০ সেশন) ছাত্র-ছাত্রীদের এক শিক্ষাবর্ষের জন্য মেধা বৃত্তি ও অবৈতনিক অধ্যয়ন করার সুযোগ প্রদানের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। মেধা বৃত্তি ও অবৈতনিক অধ্যয়নের জন্য শিক্ষার্থীদেরকে অনলাইনে আবেদন করতে হবে।

[৩] মঙ্গলবার (১৩ এপ্রিল) জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার প্রকৌশলী মো: ওহিদুজ্জামান স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়।

[৪] বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, student. erp.jnu.ac.bd অর্থাৎ student login প্যানেলে লগ-ইন করার পর ডান দিকে ”Apply for scholarship” লিংকে ক্লিক করে আবেদন করা যাবে। সংশ্লিষ্ট শিক্ষার্থীগণ ১৪-০৪-২০২১ থেকে ১২-৫-২০২১ তারিখ পর্যন্ত নির্ভুলভাবে তথ্যাদি পূরণ করে অনলাইনে আবেদন সাবমিট করতে পারবে।উল্লেখিত সময়ের পর প্রাপ্ত আবেদনপত্র গ্রহণ করা হবে না।

[৫] বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, সংশ্লিষ্ট বিভাগ নির্ধারিত লিংকে প্রবেশ করা ছাত্রছাত্রীদের আবেদনপত্রসমূহ ডাউনলোড করবেন এবং বিধি মোতাবেক দ্বিতীয় অংশ সুপারিশসহ পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক দপ্তরে ২৪-৫-২০২১ তারিখের মধ্যে প্রেরণ করবেন। আবেদনের তৃতীয় অংশ সঠিকভাবে যাচাই করে মন্তব্য প্রদানপূর্বক পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক দপ্তর ৩-৬-২০২১ তারিখের মধ্যে রেজিস্ট্রার দপ্তরে প্রেরণ করবেন। এছাড়াও বিভাগে প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থী অধ্যয়নরত থাকলে তাদেরকে আবেদন করার জন্য উৎসাহিত করার কথাও বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।

[৬] জানা যায়, বৃত্তি নীতিমালা ২০১৩ অনুযায়ী শুধুমাত্র ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষে স্নাতক (সম্মান) / সমমান ১ম বর্ষে অধ্যয়নরত ছাত্র-ছাত্রীদের এক শিক্ষাবর্ষের জন্য প্রত্যেক বিভাগে ৩ জনকে প্রতি মাসে ৪০০ টাকা হারে মেধা বৃত্তি এবং এক শিক্ষাবর্ষের জন্য বিনা বেতনে বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সুযোগ প্রদান করা হবে।

[৭] মেধা বৃত্তি ছাড়াও প্রতি বিভাগে ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষে অধ্যয়নরত ছাত্র-ছাত্রীদের ১০% অস্বচ্ছল মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীকে বিনা বেতনে বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সুযোগ প্রদান করা হবে। বিনা বেতনে পড়ার সুযোগ পাওয়ার যোগ্য ছাত্র-ছাত্রীদের তালিকায় নীতিমালা মোতাবেক বিভাগীয় একাডেমিক কমিটির মতামত থাকতে হবে।

[৮] উল্লেখ্য, ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষে ১ হাজার ১১৬ জন মেধাবী শিক্ষার্থীকে বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে মেধা ও অবৈতনিক বৃত্তি প্রদান করা হয়।যার মধ্যে স্নাতক পর্যায়ে ৩০৭ জনকে মেধাবৃত্তি, ৭১০ জনকে অবৈতনিক বৃত্তি এবং স্নাতকোত্তর পর্যায়ে ৪০ জনকে মেধাবৃত্তি ও ৬৯ জনকে অবৈতনিক বৃত্তি প্রদান করা হয়েছিল।

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত