প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ব্যবসায়ীর পায়ে গুলি: রাউজানের কাউন্সিলরসহ ৮ জনের নামে মামলা

শাহাদাত হোসেন:[২] চট্টগ্রামের রাউজান পৌর এলাকায় মসজিদে লাশ বহনের একটি খাটিয়া দানের বিষয় নিয়ে স্থানীয় এক ব্যবসায়ীকে পায়ে গুলি করে আহত করার অভিযোগ উঠেছে কাউন্সিলর আলমগীর আলীর বিরুদ্ধে। গুলিবিদ্ধ ব্যবসায়ীর নাম সাইফ উদ্দীন খান সাবু (৪৯) । তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

[৩] বুধবার বিকেল ৩টার দিকে এই ঘটনাটি ঘটে রাউজান পৌরসভার ১নং ওয়ার্ডের পশ্চিম গহিরা আবুদ্দার বাড়ির শেখ ইব্রাহীম জামে মসজিদে মাঠে।তবে কাউন্সিলর আলমগীর আলী গুলি করার কথা অস্বীকার করেছেন। গুলিবিদ্ধ সাইফ উদ্দীন খান সাবু একই এলাকার মৃত মুজিবুল হকের ছেলে এবং রাউজান পৌরসভা যুবলীগের সি.সহ-সভাপতি আব্দুল্লাহ আল মামুনের বড় ভাই। তিনি বিদেশ থেকে দেশে এসে মুরগির খামার ব্যবসায়ে যুক্ত হন।

[৪] স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানা যায়,স্থানীয় এক প্রবাসী শেখ ইব্রাহিম জামে মসজিদে লাশ বহনের একটি উন্নতমানের খাটিয়া প্রদান করেন। এই খাটিয়াটি ওই প্রবাসীর বাড়িতে ফেরত পাঠায় রাউজান পৌর যুবলীগের সি.সহ-সভাপতি আব্দুল্লাহ আল মামুন। এ নিয়ে দুপক্ষের মধ্যে কথা- কাটাকাটি হলে এক পর্যায়ে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে গুলিবিদ্ধ হন সাইফুদ্দিন।

[৫] এই বিষয়ে জানতে চাই রাউজান পৌর যুবলীগের সহ সভাপতি আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, আমার সামনেই কাউন্সিলর আলমগীর আলী পকেট থেকে পিস্তল বের করে আমার বড় ভাইয়ের পায়ে গুলি করেন। কাউন্সিলর আলমগীর আলী সাথে আমাদের দীর্ঘদিনের বিরোধ ছিল। কিন্তু তিনি মসজিদ কমিটির কোন কিছুতেই নেই। মসজিদের পেশ ইমাম মাওলানা জাহাঙ্গীর আলম বলেন, মসজিদে খাটিয়া নিয়ে কিছুদিন ধরেই এলাকার দুই পক্ষের বিরোধ চলছিল।

[৬] তবে আমি ঘটনাস্থলে ছিলাম না। কাউন্সিলর আলমগীর আলী বলেন, আমি কাউকে গুলি করিনি। কিছু লোক মসজিদের উন্নয়নকাজে বাধা দেয় এবং মসজিদে দান করা খাটিয়া ওই প্রবাসীর বাড়ীতে ফেরত পাঠালে দুপক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এতে এক ব্যক্তি আঘাত পেয়ে রক্তাক্ত হয়েছেন। তবে কোনো গোলাগুলি ঘটনা ঘটেনি।গোলাগুলির ঘটনাটি বানানো কথা।

[৭] রাউজান ও রাঙ্গুনিয়া সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) আনোয়ার হোসেন শামীম বলেন, রাউজানের পশ্চিম গহিরায় একজন গুলিবিদ্ধ হয়েছেন বলে শুনেছি। ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। সাইফুদ্দিন নামের এক ব্যক্তিকে ওয়ার্ড কাউন্সিলর পায়ে গুলি করেছেন বলে অভিযোগ করেছেন পরিবার। আমরা খোঁজ নিয়ে আইনগত ব্যবস্থা নিব।সম্পাদনা:অনন্যা আফরিন

 

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত