প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] পোশাক কারখানা বন্ধ থাকলে রপ্তানি পিছিয়ে পড়বে এবং বিশ্ববাজারও হারাতে হবে: ফারুক হাসান

শরীফ শাওন: [২] জীবন-জীবিকা ও দেশের অর্থনৈতিক স্বার্থে শিল্প-কলকারখানাগুলোকে লকডাউনের আওতামুক্ত রাখার দাবি জানিয়েছেন, রপ্তানিমুখী তৈরি পোশাক কারখানা মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএ’র নবনির্বাচিত সভাপতি ফারুক হাসান।

[৩] নব-নির্বাচিত সভাপতি বলেন, ইউরোপ, আমেরিকা, প্রতিবেশী ভারতসহ বিশ্বে অনেক উন্নত রাষ্ট্রে লকডাউন ঘোষণা করা হলেও সেখানে শিল্প-কলকারখানা চালু রয়েছে। শ্রমিকরা কারখানার আশে পাশেই থাকেন, কর্মক্ষেত্রে থাকলে তাদের সংক্রমণ হার কমবে।

[৪] সালাম মুর্শিদী বলেন, আমাদের জাতীয় শিল্প পোশাকখাত হলেও আন্তর্জাতিকভাবে আমাদের প্রতিযোগিতায় টিকে থাকতে হয়। প্রতিযোগী ভারত-ভিয়েতনামের কারখানায় উৎপাদন অব্যাহত আছে। এছাড়াও তিন মাসের মধ্যে মুসলমানদের বড় ধর্মীয় উৎসব অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে।

[৫] বিজিএমইএ’র ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মোহাম্মদ আব্দুস সালাম বলেন, চলতি অর্থবছরের প্রথম ৯ মাসে বিগত অর্থবছরের তুলনায় রপ্তানি হারিয়েছি ৯.৫ শতাংশ। ২০২০ সালের এপ্রিলের শেষ নাগাদ ১১৫০টি সদস্য প্রতিষ্ঠান ৩.১৮ বিলিয়ন ডলারের কার্যাদেশ বাতিলের শিকার হয়েছে। সবশেষ তথ্য অনুযায়ী, গত ডিসেম্বর মাসে ইউরোপের খুচরা বাজারে বিক্রি কমেছে ২৮ শতাংশ, যুক্তরাষ্ট্রে কমেছে ১৬ শতাংশ। গত সেপ্টেম্বর মাস থেকে আমাদের পোশাকের ৪.৫ থেকে ৫ শতাংশ হারে দরপতন অব্যাহত আছে। এমন সংকটে থেকেও আমাদের শ্রমিকদের মজুরি দিয়ে যেতে হয়েছে এবং অন্যান্য খরচ মেটাতে হয়েছে।

[৬] রোববার দুপুরে পোশাকখাতের বর্তমান অবস্থা নিয়ে রাজধানীতে বিজিএমইএ, বিকেএমইএ, বিটিএমইএ ও ইএবি’র যৌথ সংবাদ সম্মেলনে তারা এসব কথা বলেন।

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত