প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] বাবা’র কবরে গেছেন ছোট্ট আনাস, জানে না বাবা আর বেঁচে নেই

আশিক এলাহী: [২] প্রতিদিনের মতোই ঘরের ভেতর এদিক-সেদিক ঘুরাফেরা করছিল ৪ বছরের ছোট্ট শিশু মুহাম্মদ আনাস।

[৩] বুধবার সকাল থেকে ছিল বাড়িভর্তি মানুষ। কিছুক্ষণ পর দুপুরের দিকে বাবাকে নিয়ে গাড়ি করে আসে আরও শতশত মানুষ বাড়ির উঠানে। এসব মানুষ হেফাজতের হামলায় আহত হয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় নিহত হওয়া মুহাম্মদ আনাসের বাবা মুহিবুল্লাহকে দেখতে এসেছিলেন।

[৪] বাড়ির এক ফুফির কোলে বসে এদিক সেদিক তাকিয়ে যেনো বাবার ফেরার অপেক্ষা করছিল ছোট্ট আনাস। সে জানে না তার বাবা আর কখনো ফিরবেন না। একজন এসে বলল বাবার লাশের পাশে এনে বাবাকে একটু দেখো, বাবাকে ডাকো! সে অবাক দৃষ্টিতে তাকিয়ে রইল।

[৫] মনে মনে প্রশ্ন তার, বাবা এরকম গাড়িতে কেন শুয়ে আছেন। কিছুক্ষণ পর হুট করে বাবা বলে ডাকল, কিন্তু বাবা যে বেঁচে নেই সেটাই বা বুঝবে কিভাবে? বাবার লাশের পাশে বসে চোখের পানিতে বিদায় জানাচ্ছে বড় ছেলে মুহাম্মদ আসিফ (২১)। সঙ্গে ছিল স্ত্রী লাকী আকতার (৩৬)। চোখের সামনে স্বামীর মৃত্যু দেখে আহাজারি করছেন স্ত্রী।

[৬] এদিকে ভাই হারিয়ে পাগলের মত হয়েছেন নিহত মহিবুল্লাহ’র দুই বোন জান্নাতুল ফেরদৌস (৪৫) ও জিন্নাতুল ফেরদৌস (৩৭)।

[৭] বৃহস্পতিবার (৮ এপ্রিল) নিহত মহিবুল্লাহ’র এলাকায় গিয়ে দেখা যায়, পুরো এলাকা নিস্তব্ধ! এ যেনো আওয়ামী লীগ নেতা মহিবুল্লাহ’র মৃত্যুতে পুরো এলাকা বেদনায় বেদিত।

[৮] বৃহস্পতিবার (৮ এপ্রিল) সকালে বাবার কবরে গেছেন ছোট্ট আনাস। সে জানে না বাবা যে আর কখনো ফিরবেন না।

[৯] উল্লেখ্য, শনিবার (৩ এপ্রিল) হেফাজতের নেতা মামুনুল হক ইস্যুতে রাঙ্গুনিয়ার কোদালায় হেফাজত, বিএনপি ও জামায়াতের অনুষ্ঠিত মিছিল থেকে হামলায় গুরুতর আহত হয়ে চট্টগ্রাম নগরীর পার্কভিউ হাসপাতালে তিনদিন চিকিৎসাধীন থাকার পর আওয়ামী লীগ নেতা মহিবুল্লাহ (৪০) ইন্তেকাল করেন।

[১০] নিহত মহিবুল্লাহ’র ছেলে মুহাম্মদ আসিফ দাবী করেন, আমার বাবা’কে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে। কে বা কারা আমার বাবা’কে ঘর থেকে ডেকে নিয়েছিলেন, তাদের গ্রেফতার করলে প্রকৃত আসামীদের নাম চলে আসবে। আসামীদের ফাঁসি দাবী করেন তিনি। এছাড়া, প্রকৃত আসামীদের সনাক্ত করতে, তিনি তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ এমপি’র হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

[১১] জানতে চাইলে চট্টগ্রামের সহকারী পুলিশ সুপার (রাউজান-রাঙ্গুনিয়া সার্কেল) মো. আনোয়ার হোসেন শামীম বলেন, রাঙ্গুনিয়া পুলিশ প্রশাসন এখন পর্যন্ত ৬ জন আসামি গ্রেফতার করেছে। সব আসামিদের আইনের আওতায় আনা হবে। আমাদের অভিযান অব্যাহত আছে। সম্পাদনা: হ্যাপি

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত