প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] দেশের বিভিন্ন জেলায় করোনা টিকার দ্বিতীয় ডোজ শুরু

জেরিন আহমেদ: [২] দেশের প্রথম ডোজ দেওয়ার অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে বৃহস্পতিবার (৮ এপ্রিল) সকাল থেকে দেশের বিভিন্ন জেলা ও উপজেলায় ভাইরাস প্রতিরোধী ভ্যাকসিনের দ্বিতীয় ডোজ দেওয়ার কর্মসূচি শুরু হয়।

[৩] সাতক্ষীরা প্রতিনিধি জানায়, বৃহষ্পতিবার সকাল ১০ টায় জেলা প্রশাসক এসএম মোস্তফা কামালের টিকা নেওয়ার মধ্য দিয়ে শুরু হয়েছে সাতক্ষীরায় কোভিড-১৯ এর টিকা গ্রহণের দ্বিতীয় ডোজ এর কার্যক্রম। এসময় প্রশাসনের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তারা সদর হাসপাতালে টিকা গ্রহণ করেছেন। এছাড়া কলারোয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে টিকা নিয়েছেন সাতক্ষীরা- ১ আসনের সংসদ সদস্য অ্যাাড. মোস্তফা লুৎফুল্লাহ।

[৪] যশোর প্রতিনিধি জানান, বৃহস্পতিবার সকাল ৮টায় যশোর জেনারেল হাসপাতালের টিকা কেন্দ্রে উপস্থিত থেকে সিভিল সার্জন ডা. শেখ আবু শাহীন ভ্যাকসিনের দ্বিতীয় ডোজ দেওয়ার কার্যক্রম উদ্বোধন করেন। স্বাস্থ্য বিভাগের তথ্যমতে, প্রথম ধাপে যশোরে এক লাখ ১৮ হাজার ৬০ জন করোনার টিকা গ্রহণ করেন। তাদের জন্য দ্বিতীয় ডোজের টিকা দেওয়া হচ্ছে। প্রথম চালানে ৭৮ হাজার ডোজ টিকা হাতে পেয়েছে স্বাস্থ্যবিভাগ। এ টিকা কার্যক্রম চলার মধ্যে বাকি ডোজের টিকাও হাতে এসে পৌঁছাবে। সকাল ৮টার আগেই যশোর জেনারেল হাসপাতালের কেন্দ্রে হাজির হন টিকা গ্রহণকারীরা। তারা লাইন দিয়ে একে একে টিকা গ্রহণ করেন। দুপুর আড়াইটা পর্যন্ত এ টিকাদান কার্যক্রম চলবে।

[৫] ময়মনসিংহ প্রতিনিধি জানান, করোনাভাইরাস প্রতিরোধে দ্বিতীয় ডোজ টিকা নিতে ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ অডিটোরিয়াম বুথে সকাল থেকে টিকা গ্রহণকারীদের উপচে পড়া ভিড় ছিল। বিশেষ করে ভিআইপি ব্যক্তিদের টিকাগ্রহণের ব্যাপক ভিড় লক্ষ্য করা গেছে। এসময় সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি মানার কোনও বিষয় দেখা যায়নি।

[৬] সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি জানান, করোনার ঊর্ধ্বমুখী সংক্রমণের মধ্যেই দ্বিতীয় ডোজ দেওয়ার কার্যক্রম শুরু হয়েছে। বৃহস্পতিবার (৮ এপ্রিল) সকাল ৯টায় সিরাজগঞ্জ বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হাসপাতালে ৮টি বুথসহ জেলার ১৯টি বুথে দ্বিতীয় ডোজের টিকাদান শুরু হয়েছে। ভ্যাকসিন নিতে জনসাধারণের মধ্যে উৎসাহী ও উদ্দীপনা দেখা দিয়েছে।

[৭] এদিকে বিভিন্ন উপজেলায় খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ভ্যাকসিনের ভায়েল মজুত আছে সবখানেই। যদিও গত দু’দিন ধরে দেশের বিভিন্ন জেলায় দ্বিতীয় ধাপের ভ্যাকসিন পৌঁছানো শুরু করলেও সবখানে এখনও দ্বিতীয় চালানটি পৌঁছাতে পারেনি বেক্সিমকোর ভ্যাকসিন সরবরাহকারী গাড়ি। তবে এ প্রক্রিয়াটি ধারাবাহিক, শুক্রবারসহ পরের সপ্তাহজুড়েই সব জেলায় ভ্যাকসিন পৌঁছানোর পরিকল্পিত লক্ষ্য নিয়েই সরবরাহ অব্যাহত রেখেছে প্রতিষ্ঠানটি।

[৮] এরপরেও ভ্যাকসিন সরবরাহে ঘাটতি না হওয়ার বড় কারণ, প্রথম ধাপে প্রতিটি জেলায় সরবরাহ করা ভ্যাকসিন দুই ডোজ হিসেবে পাঠানোয় এর পরিমাণ চাহিদার চেয়ে বেশি ছিল। পরে দ্বিতীয় ডোজের জন্য মজুত না করে ভ্যাকসিন প্রয়োগ অব্যাহত রাখার সরকারি নির্দেশনার কারণে দেশের কোনও জেলায় প্রথম ডোজের ভ্যাকসিন নিঃশেষ হয়ে যায়নি। আর নানাবিধ কারণে ভ্যাকসিন গ্রহণকারীদের সংখ্যা হঠাৎ করে কমে যাওয়ায় সবখানেই কিছু ভায়েল অবশিষ্ট রয়েছে। তাই প্রতিটি জেলাতেই সরকারি নির্দশনা অনুসারে প্রথম দফায় পাঠানো অবশিষ্ট ভ্যাকসিন দিয়েই শুরু হচ্ছে দ্বিতীয় ডোজের কর্মসূচি। এরমধ্যেই পৌঁছে দেওয়া হবে চাহিদা অনুযায়ী পরের চালান।শের বিভিন্ন জেলায় করোনা টিকার দ্বিতীয় ডোজ শুরু

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত