প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] লালমনিরহাটে শিলাবৃষ্টি ফসলের ক্ষতির শ্বঙ্কা

লালমনিরহাট প্রতিনিধিঃ [২] জেলার উপর দিয়ে বয়ে যায় মাঝারী আকারের শিলাবৃষ্টি। বোরো ধানসহ ফসলের ব্যাপক ক্ষতির শ্বঙ্কা চাষিদের।

[৩] বুধবার (৭ এপ্রিল) রাতে ১১টার দিকে হঠাৎ শিলাবৃষ্টি শুরু হয়। যা এলাকা ভেদে টানা ৫-১০ মিনিটের অধিক সময় স্থায়ী ছিল।

[৮] স্থানীয়রা জানান, রাত ১১টার দিকে হঠাৎ লালমনিরহাটের আকাশ কালো মেঘে ছেঁয়ে যায়। আকাশে মেঘের গর্জন শুরু হয়। মুহুর্তে প্রায় দেড়/দুইশত গ্রাম ওজনের শিল পড়তে শুরু করে। বৃষ্টি ছাড়াই শুধু শিল পড়ে ৫/৭ মিনিট। এরপর কয়েক মিনিট শিলাবৃষ্টি হয়। ছোট থেকে মাঝারী আকারে শিলার আঘাতে বোরো ধানসহ ফসলের ব্যাপক ক্ষতির শ্বঙ্কায় চিন্তিত হয়ে পড়েছেন জেলার চাষিরা। শুধু বোরো ধানই নয়। ভুট্টা, তরমুজ, মিষ্টি কুমড়া, বাদাম, পেঁয়াজ, মরিচ, শসা, কড়লা, ঝিংগাসহ সকল ফসলের ক্ষতির শ্বঙ্কা রয়েছে।

[৯] বোরো চাষি তাহাজুল ইসলাম জানান, বোরো ধান প্রায় মধ্য বয়স অতিক্রম করেছে। কিছু দিনের মধ্যে শীষ বেড় হবে। এমন ধান ক্ষেতে শিলার আঘাতে নষ্ট হওয়ার ব্যাপক সম্ভবনা রয়েছে। ধান চিটা হয়ে যেতে পারে। ফলে ফলন অনেকাংশ কমে যাবে। অনেক কষ্টে চাষ করা বোরো ধান চিটা হলে পরিবারের খাদ্য যোগানো অসম্ভব হয়ে পড়বে।

[১০] পেঁয়াজ চাষি আজিজুল ইসলাম জানান, আগাম জাতের পিঁয়াজ ইতিমধ্যে ক্ষেত থেকে উঠে গেছে। কিন্তু কিছু পিঁয়াজ এখনো ক্ষেতে রয়েছে। যা অল্প কিছু দিন হলে সংগ্রহ করা যেতো। এমন উৎতি ফসলে শিলাবৃষ্টির কারনে পচে যাওয়ার আশংকা রয়েছে। পঁচে গেলে উৎপাদন খরচও উঠবে না বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

[১১] কৃষকলীগ নেতা বাদশা আলম জানান, হঠাৎ মাঝারী আকারের এ শিলাবৃষ্টি বোরো ধান ও সবজিসহ ফসলের ক্ষতির শ্বঙ্কা রয়েছে। শিলাবৃষ্টিতে কৃষকরা ফসলহানীর শ্বঙ্কা করছেন। সম্পাদনা: জেরিন আহমেদ

সর্বাধিক পঠিত