প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] নারায়ণগঞ্জে লঞ্চ ডুবির ঘটনায় এনএসআই কর্মকর্তাসহ নিখোঁজ ২ ,আরও ৫ লাশ উদ্ধার

মনজুর অনিক: [২] নারায়ণগঞ্জে শীতলক্ষ্যা নদীতে যাত্রীসহ লঞ্চডুবির ঘটনায় নিখোঁজ থাকা আরও ৫ জনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। মঙ্গলবার ভোর থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত লাশগুলো নদী থেকে তোলা হয়। এ নিয়ে মৃতের সংখ্যা দাড়িয়েছে ৩৪ এ।

[৩] এখনও নিখোঁজ রয়েছেন মুন্সিগঞ্জ টঙ্গীবাড়ি বেতকা এলাকার মুছা শেখের ছেলে জাকির হোসেন (৪৫) ও এনএসআইয়ের এক কর্মকর্তাসহ দু’জন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন নারায়ণগঞ্জ নৌ থানা পুলিশের ওসি শহিদুল আলম।ওসি বলেন,এখন পর্যন্ত মোট ৩৫ জনের লাশ উদ্ধার হয়েছে।

[৪] নিখোঁজ রয়েছে আরো দু’জন। নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নাহিদা বারিক বলেন, স্বজনদের মাধ্যমে করা তালিকা অনুযায়ী ৩৫ জন নিখোঁজ ছিলেল। তাদের মধ্যে সোমবার ২৯ জনের লাশ উদ্ধার হয়েছে৷ মঙ্গলবার নিখোঁজদের মধ্যে পাঁচজনের লাশও উদ্ধার করা হয়েছে।

[৫] এখনও দুইজন নিখোঁজ রয়েছেন। তাদের মধ্যে একজন এনএসআইয়ের কর্মকর্তা। উদ্ধার হওয়ার লাশগুলো হরো, মুন্সিগঞ্জ সদর দক্ষিণ ইসলামপুরের নুরুল আমিনের ছেলে তানভীর হোসেন হৃদয়(২৪), মালপাড়া এলাকার সিরাজের পুত্র রিজভী (২০), মুন্সিগঞ্জ সদর সুনিতা সাহার অপর ছেলে অনিক সাহা (১২), মধ্য কোন্ডাগাও এলাকার মতিউর রহমান কাজীর পুত্র ইউসুফ কাজী (৩০), ঢাকা মিরপুর-১১ এর বাসিন্দা সিরাজুল ইসলামের পুত্র মো. সোহাগ হাওলাদার (২৩)।

[৬] উল্লেখ্য,রবিবার সন্ধ্যা সোয়া ৬টার দিকে মুন্সিগঞ্জের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায় এম এল সাবিত আল হাসান যাত্রীবাহী লঞ্চটি মদনগঞ্জ-সৈয়দপুর এলাকায় তৃতীয় শীতলক্ষ্যা সেতুর অদূরে এসকেএল-৩  নামে একটি কার্গো জাহাজ পেছন থেকে ধাক্কা দেয় যাত্রীবাহী লঞ্চটি ডুবে যায়।

[৭] এর মধ্যেই নদীতে ঝাপিয়ে পড়েন কয়েকজন। এর মধ্যে ২৯ জন যাত্রী জীবিত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। পাওয়া যায় পাঁচ নারীর লাশ। নিখোঁজ ছিলেন আরও ৩০ জন।

[৮] লঞ্চডুবির ঘটনার ১৮ ঘন্টা পর গতকাল দুপুর বারোটার দিকে লঞ্চটিকে উদ্ধার করা সম্ভব হলে তার ভেতর পাওয়া যায় আরও ২১ জনের লাশ। বিকেলে মেলে আরও ৩ জনের লাশ।সম্পাদনা:অনন্যা আফরিন

সর্বাধিক পঠিত