প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] লকডাউন নিয়ে গোপালগঞ্জে অসাধু ব্যবসায়ীদের তামাশা, কঠোর অবস্থানে প্রশাসন

আসাদুজ্জামান বাবুল: [২] করোনার সংক্রমণ প্রতিরোধে দেশব্যাপী সপ্তাহব্যাপী লকডাউনের ২য় দিন মঙ্গলবার (৬ এপ্রিল) গোপালগঞ্জের সব ধরনের দোকানপাট বন্ধ রেখে সরকার ঘোষিত লকডাউন পালন করছেন ব্যবসায়ীরা।

[৩] শহরের কেরামত প্লাজাসহ নানান শপিংমলে কেউ কেউ দোকানের অর্ধেক শাটার অথবা দরজা সামান্য খুলে পুরোদমে ব্যবসা-বাণিজ্য চালিয়ে যাচ্ছে এমন দৃশ্য ছিলো চোখে পড়ারমতো। আবার পুলিশ ও ম্যাজিষ্ট্রেটের টহল দেখলেই দোকানপাট বন্ধ করে দিচ্ছে তারা। প্রশাসনের লোকজন চলে যাওয়ার পর তারা পূর্বের মতোই অর্ধেক শাটার খুলে দোকানের কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে। প্রশাসনের সঙ্গেঁ স্থানীয় কিছু অসাধু ব্যবসায়ীদের তামাশা লক্ষ করা গেছে ফজরের নামাজের পর থেকে।

[৪] গোপালগঞ্জ শহরের বড় বাজার, নতুন বাজার, কাপড়পট্রি, বেদে পট্রি, উপজেলার সামনে, সিও অফিস ঘাট ও চৌরঙ্গী এলাকায় প্রশাসনের চোখকে ফাঁকি দিয়ে ব্যবসায়ীরা বেশ কিছু দোকানপাট খুলেছে। শহরের বিভিন্ন জায়গায় চায়ের দোকানে মানুষের উপচে পড়া ভীড় লক্ষ করা গেছে।

[৫] অপরদিকে সরকার ঘোষিত সপ্তাহব্যাপী লকডাউন কার্যকর করতে মাঠে কাজ করছেন গোপালগঞ্জের জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসন। গোপালগঞ্জের জেলা প্রশাসক শাহিদা সুলতানার দিকনির্দেশনায় একজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের তত্ত্বাবধানে ভ্রাম্যমাণ আদালতের শক্তিশালী একটি টিম শহরের প্রতিটি মোড়ে মোড়ে টহল দিয়ে মানুষকে সচেতনামুলক পরামশ দিচ্ছেন।

[৬] গোপালগঞ্জের জেলা প্রশাসক শাহিদা সুলতানা আমাদের এ প্রতিনিধিকে জানিয়েছেন, কেউ যদি সরকার ঘোষিত সপ্তাহব্যাপী লকডাউন অমান্য করেন তাহলে আমরা তার বিরুদ্ধে বিধিমোতাবেক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিবো।

[৭] সকলকে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে পেশাগত দায়িত্ব পালনের কথা উল্লেখ করে জেলা প্রশাসক শাহিদা সুলতানা আরো বলেছেন, সরকার ঘোষিত সপ্তাহব্যাপী লকডাউন কার্যকর করতে আমরা মাঠে নেমেছি। আইন অমান্যকারীদের কোনোভাবেই ছাড় দেয়া হবে না। সম্পাদনা: হ্যাপি

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত