প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

এলন মাস্কের প্রিয়তমা গ্রিমেস মঙ্গলেই মরতে চান

রাশিদ রিয়াজ : লাল গ্রহ মঙ্গলের আকর্ষণে শুধু যে মার্কিন শীর্ষ কোটিপতি এলন মাস্ক বিলিয়ন ডলার খরচ করছেন তা নয় তার প্রিয়তমা গ্রিমেস যার আসল নাম ক্লেয়ারি লিস বুশা এবং কানাডীয় এই সঙ্গীত শিল্পী মরতে চান মঙ্গলেই। ইস্ট্রাগ্রামে এলন মাস্কের বান্ধবী তার এই ইচ্ছা প্রকাশ করেন। একারণেই হয়ত এলন মাস্ক বারবার ব্যর্থতা সত্ত্বেও, তার মহাকাশযান বিস্ফোরণ হলেও বান্ধবীর শেষ ইচ্ছা বাস্তবে পরিণত করতে অবলীলায় কোটি কোটি ডলার বিনিয়োগ করছেন।

মঙ্গলবার এলনের ৩৩ বছর বয়স্ক এই বান্ধবী লিখেন আমি মঙ্গলের ধূলিতে মরতেও রাজি। এলন ও গ্রিমেসের একটি ছেলে সন্তান রয়েছে। ইনস্ট্রাগ্রামে তার শেষ ইচ্ছার কথা লেখার সময় সন্তানের ছবিও পোস্ট করেছেন এলনের বান্ধবী। গ্রিমেসের পরণে ফুল ছাপের লেগিংস, কালো বুট ও লাল রংয়ের স্কার্ট ছিল। ৪৯ বছরের এলন ২০১৮ সালে গ্রিমেসের সঙ্গে ডেটিং শুরু করেন। এর আগে গ্রিমেস বলেছিলেন তার বয়স যখন ৫০ হবে তখন তিনি মঙ্গলে বসবাস শুরু করতে চান। এবং এজন্যে যদি সেখানে কায়িক পরিশ্রম করতে হয় মৃত্যুর আগ পর্যন্ত তবে তাতেও তিনি রাজি।

বৈদ্যুতিক গাড়ি টেসলা তৈরির পর মাস্কের খ্যাতি বিশ্বে ছড়িয়ে পড়লেও গত কয়েক বছরে মঙ্গলে বসতি স্থাপনের জন্যে তিনি তার কোম্পানি স্পেস এক্স’এ যে বিশাল আকারের বিনিয়োগ করছেন এবং একারণেও তার নাম অনেকের মুখে মুখে ঘুরছে। মঙ্গলে ভ্রমণের জন্যেও স্পেস এক্স বিভিন্ন ধরনের প্রযুক্তিগত উদ্যোগ নিয়েছে।

গত মঙ্গলবার স্পেস এক্স’এর একটি প্রোটোটাইপ রকেট অবতরণ করতে ব্যর্থ হয়। টেক্সাসে এটি অবতরণের পূর্বমূহুর্তে ভেঙ্গে টুকরো টুকরো হয়ে পড়ে। স্কাই নিউজ বলছে গত ডিসেম্বরে রকেটটি উড্ডয়নের পর অন্তত ৬ মাইল উচ্চতায় এটি ঘোরাফেরা করে। মিশন ব্যর্থ হলেও এলন মাস্ক টুইটে বলেছেন রকেটটি অবতরণ করতে না পারলেও অন্তত উড্ডয়নের পর সঠিক অবস্থানে ফিরে আসতে সমর্থ হয়েছিল। পরের টুইটে এলন মাস্ক জানান টেক্সাসে স্থানীয় বাসিন্দাদের জন্যে তিনি স্কুল ও অবকাঠামো গড়তে ৩০ মিলিয়ন ডলার দান করেছেন। এলনের কোম্পানিতে কর্মরত প্রকৌশলী ও কর্মচারীদের ছেলেমেয়েদের লেখাপড়ার সুযোগ ও তারা যাতে নির্বিঘ্নে কাজ করতে পারেন সে জন্যে এ ব্যবস্থা নিয়েছেন এই মার্কিন শীর্ষ কোটিপতি। চাঁদ ও মঙ্গলগ্রহে স্পেসএক্স তার মহাকাশযান স্টারশিপে নভোচারী ও কার্গো পাঠানোর পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করছে।

সর্বাধিক পঠিত