প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] করোনার সময়ে প্রয়োজন না হলে কোথাও না যাওয়ার অনুরোধ নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রীর

আনিস তপন: [২] বুধবার সচিবালয়ে মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে আসন্ন ঈদুল ফিতর উপলক্ষ্যে লঞ্চ, ফেরি ও স্টীমারসহ জলযান সুষ্ঠুভাবে চলাচল ও যাত্রীদের নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণ সংক্রান্ত বৈঠকে এ কথা বলেন, নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী।

[৩] তিনি বলেন, করোনার দ্বিতীয় ঢেউ এসেছে। গতবারের চেয়ে একটু বেশি। স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। সর্বসাধারণকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে না চললে বা এর ব্যত্যয় ঘটলে আইনানুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে। যাত্রী পরিবহনের ক্ষেত্রে স্বাস্থ্যবিধি যথাযথভাবে অনুসরণ করতে হবে। গণপরিবহনে ৫০ ভাগ যাত্রী পরিবহনের সরকারি নির্দেশনা রয়েছে। করোনার সময়ের জন্য লঞ্চের ভাড়া পুননির্ধারণ করা হবে।

[৪] প্রতিমন্ত্রী বলেন, আমাদের সীমাবদ্ধতা থাকলেও আন্তরিকতা ও চেষ্টার কোন কমতি নেই। মানুষের কর্মচাঞ্চল্য বেড়েছে।

[৫] আগামীতে পরিকল্পনা অনুযায়ী পরিবহন খাতে সেবায় বড় ধরনের পরিবর্তন আসছে। নতুন নতুন বাস, ট্রেন ও লঞ্চ পরিবহনে যুক্ত হচ্ছে। ভবিষ্যতে আরো বাড়বে।

[৬] বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয় যে, করোনা ভাইরাস জনিত রোগবিস্তার রোধে স্বাস্থ্য বিভাগের প্রণীত গাইডলাইন/স্বাস্থ্যবিধি যথাযথভাবে অনুসরণ করে সদরঘাটসহ অন্যান্য নৌবন্দরে যাত্রীসহ নৌযান পরিচালনার বিষয়টি নিশ্চিত করতে হবে; লঞ্চের অনুমোদিত ভাড়ার চেয়ে বেশি ভাড়া আদায়ে এবং নদীর মাঝপথে নৌকাযোগে যাত্রী উঠালে সংশ্লিষ্ট লঞ্চ মালিক/চালকের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে; ঈদের পূর্বে ০৩ দিন ও ঈদের পরে ০৩ দিন নিত্য প্রয়োজনীয় ও দ্রুত পচনশীল পণ্যবাহী ট্রাক ব্যতীত সাধারণ ট্রাক ও কাভার্ড ভ্যান ফেরীতে পারাপার বন্ধ রাখতে হবে; রাতের বেলায় সকল প্রকার মালবাহী জাহাজ, বালুবাহী বাল্কহেড চলাচল বন্ধ রাখতে হবে। আগামী ১১/০৫/২০২১ হতে ১৭/০৫/২০২১ তারিখ পর্যন্ত দিনের বেলাও সকল বালুবাহী বাল্কহেড চলাচল বন্ধ রাখতে হবে; কোন ক্রমেই লঞ্চের যাত্রী ও মালামাল ওভারলোড করা যাবেনা; স্টীমার/ লঞ্চ/স্পীডবোট হতে নির্ধারিত ভাড়ার অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করা যাবে না।

[৭] সকল যাত্রীবাহী নৌযানে সদরঘাটে ঈদের আগে ৫(পাঁচ)দিন মালামাল/মটর সাইকেল পরিবহন সম্পূর্ণরূপে বন্ধ এবং ঈদের পরে অন্যান্য নদী বন্দর হতে আগত নৌযানে ৫(পাঁচ) দিন মালামাল/মটর সাইকেল পরিবহন সম্পূর্ণরূপে বন্ধ রাখতে হবে। রাতের বেলায় স্পীডবোট চলাচল বন্ধ করা। দিনের বেলায় স্পীডবোট চলাচলের সময় যাত্রীদের লাইফ জ্যাকেট পরিধান নিশ্চিত করতে হবে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত