প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

এশিয়ার ৬টি দেশে ন্যানোপণ্য ন্যানোপণ্য কেন্দ্র খুলেছে ইরান

রাশিদ রিয়াজ : ইরানের ন্যানোটেকনোলজি ইনোভেশন কাউন্সিল জানিয়েছে এশিয়ার ৬টি দেশে ন্যানোপণ্য কেন্দ্র খুলেছে। দেশগুলো হচ্ছে চীন, ভারত, ইন্দোনেশিয়া, সিরিয়া, তুরস্ক ও ইরাক। ৫টি মহাদেশের ৪৯টি দেশে ইরান ন্যানোপণ্য রফতানি করছে। অন্তত ১০টি শিল্প খাতে ৭২৫ ধরনের ন্যানোপণ্য তৈরি করছে ইরান। সাম্প্রতিক বছরগুলোতে ইরানে ন্যানোপ্রযুক্তিকে অগ্রাধিকার দেওয়ায় এধরনের পণ্য উৎপাদনকারী সেরা ৫টি দেশের মধ্যে ইরান অন্যতম। গত বছর বিশ্বে ন্যান্যেপ্রযুক্তি নিয়ে যে সব প্রবন্ধ উপস্থাপিত হয় তার ২০ শতাংশ রচনা করেছেন ইরানের ন্যানোপ্রযুক্তিবিদরা। গত বছর বিশ্বে চতুর্থ নেতৃস্থানীয় দেশ হিসেবে ইরানের প্রযুক্তিবিদ ও গবেষকরা ১১ হাজার ৫৪৬টি ন্যানোবিজ্ঞান সম্পর্কিত প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন।

স্ট্যাটন্যানো’র মাসিক মূল্যায়নে দেখা গেছে বিশ্বের ন্যানোপ্রযুক্তি নিয়ে লিখিত প্রবন্ধের ৬ শতাংশ রয়েছে ইরানের। ইরানে ন্যানোপ্রযুক্তি নিয়ে কাজ করছে ২২৭টি কোম্পানি। তারা তৈরি করছে ৪১৯টি ন্যানো পণ্য। নির্মাণ শিল্প, বস্ত্র, মেডিসিন, হোম এ্যাপলিয়েন্সেস, অটোমোটিভ ও খাদ্য খাতে ইরান বিভিন্ন ধরনের ন্যানো পণ্য তৈরি করছে। গত বছর ইরানের ৩১টি বিশ্ববিদ্যালয়ের  গবেষণা কেন্দ্রে ৫০টি ন্যানো আর্টিকাল রচিত হয়েছে। গ্লোবাল ইনোভেশন ইনডেক্সে ইরান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি নিয়ে শীর্ষ ১শ দেশের তালিকায় ৪৩তম স্থানে অবস্থান করছে। ২০১৯ সালের তুলনায় ইরান তিন ধাপ এগিয়েছে এই তালিকায়। ইরানের ডেপুটি বিজ্ঞানমন্ত্রী বলেছেন বিশ্বের শীর্ষ বৈজ্ঞানিক প্রবন্ধে ইরানের অংশীদারিত্ব রয়েছে ৩ শতাংশ। প্রকাশিত প্রবন্ধের দিক থেকে বিশ্বে ইরানের অবদান ২ শতাংশ। ইসলামি দেশগুলোর মধ্যে ইরানের অবস্থান এদিক থেকে প্রথম স্থানে রয়েছে। ইরানের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি ভাইস প্রেসিডেন্ট সরেনা সাত্তারি বলেন ফিনটেক, তথ্যপ্রযুক্তি, স্টেম সেল, এ্যারোস্পেস ও কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তায় ইরান এ অঞ্চলে শীর্ষ অবস্থানে অবস্থান করছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত