প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মুশফিক ওয়াদুদ: পশ্চিম বাংলার প্রতিনিধি হিসেবে মমতা ব্যানার্জী আমাদের ৫০ বছর পূর্তির অনুষ্ঠানে মধ্যমণী থাকা উচিত ছিলো

মুশফিক ওয়াদুদ: ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ মোদির ফেসবুক পেজে তার বাংলাদেশ সফর নিয়ে পোস্টগুলো দেখছিলাম। সেখানে বেশকিছু বাঙালির (বাংলাদেশি এবং পশ্চিম বাংলার বাঙালি) কমেন্ট আছে। সঙ্গে আরএসএস সমর্থকদেরও কমেন্ট আছে। একটি ইন্টারেস্টিং বিষয় চোখে পরলো। পশ্চিমবাংলার তৃণমূল সমর্থকরা যেখানে মোদির প্রচণ্ড সমালোচনা করছেন, সেই সব  কমেন্টগুলোতে বাংলাদেশিদের একটি অংশ (ধারণা করি আওয়ামী সমর্থক) সেগুলো ডিফেন্ড করছেন। মোদির ফেসবুক পেজের কমেন্ট সেকশনে দুই পক্ষ- এক. মোদির সমালোচক যাদের একটি বড় অংশ পশ্চিমবাংলার তৃণমূল সমর্থক এবং প্রগতিশীলরা। আর মোদি সমর্থক যেখানে বাংলাদেশিদের বেশ উল্লেখযোগ্য একটি অংশ। ভাবছিলাম বাংলাদেশ সফরে অনাকাক্সিক্ষত পরিস্থিতির মুখোমুখি হতে পারেন মোদি এটা আঁচ করতে পারেননি? গোয়েন্দা রিপোর্ট ছিলো না?

অবশ্যই ছিলো। না থাকার কোনো কারণ নেই। আমি মনে করি মোদির  ঝুঁকি নিয়ে বাংলাদেশ সফরের একমাত্র লক্ষ্য হলো পশ্চিমবাংলার নির্বাচন। মোদি ভালো করেই জানেন- সফরটি সফল হোক কী ব্যর্থ হোক তার  নির্বাচনে লাভ ছাড়া ক্ষতি করবে না। কারণ এই বিক্ষোভের ঘটনায় বাংলাদেশ বিরোধী সেন্টিমেন্ট আরও বাড়বে ভারতে উগ্র হিন্দুদের মধ্যে। মোদির জন্য যা নির্বাচনে সবচেয় বড় অস্ত্র হয়ে ওঠতে পারে। পশ্চিম বাংলার এবারের নির্বাচন শুধু একটি নির্বাচন না বরং মারাঠাদের আধুনিক উপায়ে পশ্চিমবাংলা দখলের চেষ্টার একটি মীমাংসা। আওয়ামী লীগ ইতিহাসের এমন  গুরুত্বর্পূ একটি সময়ে পরোক্ষ ভাবে মারাঠাদের পক্ষ নিয়ে নিশ্চিত ভাবেই ইতিহাসের ভুল জায়গায় অবস্থান করছে। বরং পশ্চিম বাংলার প্রতিনিধি হিসেবে মমতা ব্যানার্জী  আমাদের ৫০ বছর পূর্তির অনুষ্ঠানে মধ্যমণী থাকা উচিত ছিলো। কারণ মুক্তিযুদ্ধে আমরা যে সহযোগিতা পেয়েছি সেটা পশ্চিম বাংলার জনগণের কাছ থেকেই। ফেসবুক থেকে

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত