প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] গণতন্ত্রের জন্য লড়াইয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে সশস্ত্রবাহিনী দিবসে ৯১ জনকে হত্যা করলো মিয়ানমার জান্তা

লিহান লিমা: [২] শনিবার মিয়ানমারের সশস্ত্রবাহিনী দিবসে কমপক্ষে ৯১ জন বিক্ষোভকারী নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে প্রাণ হারিয়েছেন। এর আগে শুক্রবার দেশটির রাষ্ট্রীয় টিভিতে দেয়া ঘোষণায় বিক্ষোভকারীদের মাথায় ও পেছন দিকে গুলি করার হুমকি দিয়েছিলো জান্তা সরকারের মুখপাত্র। সিএনএন

[৩]মিয়ানমারের বেসামরিক ছায়া সরকারের মুখপাত্র ডাক্তার সাশা বলেন, ‘আজ সেনাবাহিনীর জন্য এক লজ্জাজনক দিন। ৩’শর বেশি নিরীহ নাগরিককে হত্যা করে সামরিক জেনারেলরা আজ সশস্ত্রবাহিনী দিবস পালন করছে।’

[৪] এদিন সকালে দেয়া এক বিবৃতিতে অভ্যুত্থানের নেতা জেনারেল মিন অং হ্লিয়াং নতুন নির্বাচন দেয়ার ও গণতন্ত্র রক্ষার প্রতিশ্রুতি দেন। তিনি বলেন, ‘মিয়ানমারের সেনাবাহিনী পুরো দেশের সঙ্গে মিলে গণতন্ত্রের সুরক্ষা করবে।’ তিনি আরো বলেন, ‘কর্তৃপক্ষ জনগণের নিরাপত্তা বিধান করবে ও দেশে শান্তি ফিরিয়ে আনবে।’

[৫]গত ১ ফেব্রুয়ারির পর থেকে এ পর্যন্ত জান্তাবিরোধী বিক্ষোভে এ পর্যন্ত ৩৮০জন প্রাণ হারিয়েছেন। গ্রেপ্তার হয়েছেন ৩ হাজারের বেশি। তবে বিক্ষোভকারীরা গণতন্ত্রের জন্য সংগ্রাম অব্যাহত রেখেছেন। নরওয়েজিয়ান একাডেমি এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, সেনাশাসনের বিরুদ্ধে গণতন্ত্রের জন্য মিয়ানমারের গণআন্দোলন নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য মনোনীত হয়েছে।

[৬]যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য ও ইউরোপিয় ইউনিয়ন মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা জোরদার করলেও দেশটি চীন ও রাশিয়ার কাছ থেকে সমর্থন পাচ্ছে। শনিবারের সেনা প্যারেডে অংশ নিয়েছেন রাশিয়ার উপ-প্রতিরক্ষা মন্ত্রী আলেক্সান্ডার ফোমিন। শুক্রবার তিনি মিয়ানমারের জ্যেষ্ঠ সামরিক নেতাদের সঙ্গে সাক্ষাত করে সেনাবাহিনীর প্রতি সমর্থন অব্যাহত রাখার কথা বলেছেন। মিন অং হ্লিয়াং রাশিয়াকে ‘মিয়ানমারের সত্যিকারের বন্ধু’ বলে মন্তব্য করেন।

সর্বাধিক পঠিত