প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশিদের একটি গর্ব করার মতো গল্প দিয়ে গেছেন: লোটে শেরিং

আসিফুজ্জামার পৃথিল: [২] শুরুতেই লোটে শেরিং বলেন, বাংলাদেশ আমার দ্বিতীয় বাড়ি। এখানে ফেরা সবসময় আনন্দের। তবে এইবারের সফর অনেক বেশি বিশেষ। কারণ আমি বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী ও বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে অংশ নিতে এসেছি।

[৩] ভুটানের প্রধানমন্ত্রী লোটে শেরিং আরও বলেন, শেখ হাসিনা আমার মায়ের মতো।

[৪] শেরিং বলেন, যারা কোভিডে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে সবার জন্য প্রার্থণা করি। আশা করি এটি দ্রুত শেষ হবে। আমি তার সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সে কথা বলেছি। প্রতিবারই তার কণ্ঠে দেশের জনগণের জন্য দরদ টের পাই। বঙ্গবন্ধু তার জনগণ ও কন্যার উপর গর্ব করতেই পারেন।’

[৫] ‘আমি বিশ্বাস করি যেসব নেতা মানবিকতার পক্ষে তারাই বিশ্বে শান্তি ও স্থিতিশীলতা আনতে পারে। শেখ হাসিনা ও তার টিম অতিরিক্ত জনসংখ্যার চাপ মোকাবেলা অসাধারণভাবে কোভিড-১৯ সামলেছে। আমি যতোবার এই দেশে আমি ততোবার শান্তি অনুভব করি। বাংলাদেশ অতিমারিকালেও উপমহাদেশে সর্বোচ্চ জিডিপি অর্জন করতে পেরেছে।’

[৬] ‘এই বছর গুরুত্বপূর্ণ কারণ আমাদের দুই দেশের সম্পর্কের বয়সও ৫০ বছর। আমরা সম্পর্ককে আরও শক্তিশালী করবো। আমরা গ্রস ডেভলপমেন্ট ইনডেক্স এর উপরেই নির্ভর করবো। করবো। একই আদর্শের অনুসারী করবো।’ সবশেষে শেরিং বলেন, যতোকাল রবে পদ্মা মেঘনা গৌরি যমুনা বহমান, ততোকাল রবে তোমার কীর্তি শেখ মুজিবুর রহমান।

[৭] এর আগে লোটে শেরিং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতে, বাংলাদেশ ভুটান কূটনৈতিক সম্পর্কের ৫০ বছর উপলক্ষ্যে প্রকাশিত স্মারক ডাকটিকেট তুলে দেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত