প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] ইএফটি জটিলতায় গত মাসের বেতন পায়নি সরকারি প্রাথমিকের সোয়া ২ লাখ শিক্ষক

শরীফ শাওন: [২] দেশজুড়ে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে শিক্ষক সংখ্যা ৪ লাখ ৪৪ হাজার ৩৬৫ জন। সকল চাকুরিজীবিদের মতো শিক্ষকদের বেতন ইলেকট্রনিক ফান্ড ট্রান্সফারের (ইএফটি) মাধ্যমে দেওয়ার লক্ষ্যে কার্যক্রম পরিচালনায় এ জটিলতা তৈরি হয়।

[৩] বেতন সংক্রান্ত অনলাইন প্ল্যাটফর্ম আইবাস প্লাস প্লাসের ১৫ মার্চ প্রতিবেদন সূত্রে জানা যায়, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে বেতন নির্ধারণ না করায় সফটওয়্যারে তালিকাভূক্ত হতে পারেনি ৮১ হাজার ৯৪৬ জন শিক্ষক।

[৪] বাকি ৩ লাখ ৬২ হাজার ৪১৯ জনের মধ্যে ডাটাবেজে এন্ট্রি হয়েছে ৩ লাখ ৫৩ হাজার ৯৯৭ জন শিক্ষক। তালিকাভুক্তি থেকে বাদ পড়েছে ৮ হাজার ৪২২ জন।

[৫] এন্ট্রি হওয়া শিক্ষকদের মধ্যে ২ লাখ ৮৬ হাজার ১৪৪ জন শিক্ষকের তথ্য সংশ্লিষ্ট উপজেলা বা থানা শিক্ষা অফিসের মাধ্যমে অনুমোদন করা হয়েছে। অনুমোদনের অপেক্ষায় রয়েছেন ৬৭ হাজার ৮৫৩ জন।

[৬] অনুমোদন পাওয়া শিক্ষকদের মধ্যে ফেব্রুয়ারি মাসের বেতন ভাতা ইএফটির মাধ্যমে পেয়েছে ২ লাখ ১৬ হাজার ১৫২ জন, বাকি ৬৯ হাজার ৯৯২ জনের ইএফটি আদেশ অপেক্ষমাণ রয়েছে। সব মিলিয়ে ইএফটি সুবিধার বাইরে বেতন জটিলতায় রয়েছে ২ লাখ ২৮ হাজার ২১৩ জন।

[৭] অর্থ বিভাগ জানায়, বিষয়টি সমাধানে শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালককে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণে এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিবকে সুপারিশসহ অনুরোধ জানানো হয়েছে। অনুরোধে বলা হয়েছে, বেতন নির্ধারণ না হওয়া শিক্ষকদের তথ্য সংশোধন, অনুমোদনের অপেক্ষায় থাকা শিক্ষকদের দ্রুত অনুমোদন ব্যবস্থা, ডাটাবেজে এন্ট্রি না হওয়া শিক্ষকদের বিষয়ে সংশ্লিষ্ট জেলা বা থানা শিক্ষা অফিসারের মাধ্যমে এন্ট্রির ব্যবস্থা এবং যারা ইএফটি ট্রান্সমিটের জন্য অপেক্ষমাণ রয়েছে তাদের ইএফটি ব্যবস্থা করা।

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত