প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] বিশ্বব্যাংক ও এডিবির সহায়তায় উন্নয়ন প্রকল্প [২] তৃণমূল পর্যন্ত বাড়বে স্বাস্থ্যসেবার মান

শাহীন খন্দকার: [২] ইতোমধ্যে কিছু কাজ শুরু হয়েছে বলে জানালেন, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহা-পরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা।
[৩] গত ৮ মার্চ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে ‘করোনার এক বছরে বাংলাদেশ: সফলতা ও চ্যালেঞ্জ’ শীর্ষক এক আলোচনা সভায় মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন তিনি। প্রবন্ধে তিনি বলেন, স্বাস্থ্য অধিদপ্তর ও স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের ভবিষৎ পরিকল্পনার মধ্যে রয়েছে, বিশ্ব ব্যাংক ও এডিবির আর্থিক সহায়তায় ২১টি প্রতিষ্ঠানে পিসিআরসহ আধুনিক মাইক্রোবায়োলজি পরীক্ষাগার স্থাপন। এই তালিকায় রয়েছে ১০টি মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, ৫টি সংক্রামক ব্যাধি হাসপাতাল ও ৪টি বিশেষায়িত প্রতিষ্ঠান।

[৪] সংক্রামক রোগ শনাক্তকরণের সক্ষমতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে ৩টি আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ৮টি, অভ্যন্তরীন বিমানবন্দর ও ৩টি সমুদ্র বন্দরে মোট ১৬টি মেডিকেল সেন্টার স্থাপন। পরিকল্পনায় আরও রয়েছে ৪৯২টি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, ৬৪টি জেলা হাসপাতাল ও ১৭টি মেডিকেল হাসপাতালে হ্যান্ড ওয়াশ কর্নার স্থাপন।

[৫] ১৭টি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ৫০ শয্যার আইসোলেশন সেণ্টার ( মোট ৮৫০ বেড) এবং অতিরিক্ত ১০ শয্যার ক্রিটিক্যাল কেয়ার ইউনিট/আইসিইউ চালু করা (সর্বমোট ১৭০শয্যা)। সেই সঙ্গে প্রাথমিক পর্যায়ে ৪৯২টি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ইনফেকশন এণ্ড কণ্ট্রোল ইউনিট স্থাপিত হবে। এছাড়াও আইসিডিডিআরবির মতো আরও গবেষণাকেন্দ্র গড়ে তোলার উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। সম্পাদনা: সালেহ্ বিপ্লব

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত