প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] ‘ডাকের’ রেকর্ডেও সবাইকে ছাড়িয়ে গেলেন কোহলি

স্পোর্টস ডেস্ক: [২] বেন স্টোকসের বাউন্সার রক্ষণাত্মক কায়দায় খেলতে চেয়েছিলেন বিরাট কোহলি। কিন্তু শট হলো আলগা। ব্যাট ছুঁয়ে বল গিয়ে জমা পড়ল উইকেটরক্ষক বেন ফোকসের গ্লাভসে। শূন্য
রানে সাজঘরে ফিরলেন ভারতের অধিনায়ক। তাতে দুটি অনাকাঙ্ক্ষিত রেকর্ডে যুক্ত হয়ে গেল তার নাম।

[৩] শুক্রবার ৫ মার্চ আহমেদাবাদে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে চতুর্থ ও শেষ টেস্টে ভারতের প্রথম ইনিংসে কোহলি টিকতে পারেন কেবল ৮ বল। এর আগে চেন্নাইতে সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টেও ডাক মেরেছিলেন তিনি।

[৪] টেস্টে অধিনায়কের দায়িত্ব পালনকালে কোহলির এটি অষ্টম শূন্য। ক্রিকেটের সাদা পোশাকের সংস্করণে অধিনায়ক হিসেবে এতগুলো শূন্য আছে ভারতের আর একজনের। তিনি সাবেক তারকা ও উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান মহেন্দ্র সিং ধোনি।

[৫] আরেকটি বিব্রতকর রেকর্ডে সৌরভ গাঙ্গুলির পাশে বসেছেন কোহলি। আন্তর্জাতিক মঞ্চে সব সংস্করণ মিলিয়ে অধিনায়ক হিসেবে তার মোট শূন্য এখন ১৩টি। ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিসিআই) বর্তমান সভাপতি সৌরভও ভারতকে নেতৃত্ব দেওয়ার সময় সমান সংখ্যকবার রানের খাতা না খুলেই আউট হয়েছিলেন।

[৬] নিজ দেশে কোনো সিরিজে এবারই প্রথম দুবার শূন্য রানে বিদায় নেওয়ার তিক্ত অভিজ্ঞতা হলো কোহলির। পেসার স্টোকসের আগে স্পিনার মঈন আলীর শিকার হয়ে খালি হাতে ফিরতে হয়েছিল তাকে। এমন বাজে সময় আগে একবারই এসেছিল ৩২ বছর বয়সী কোহলির ক্যারিয়ারে। ২০১৪ সালে ইংল্যান্ড সফরে শূন্য রানে জেমস অ্যান্ডারসন ও লিয়াম প্লাঙ্কেটের বলে আউট হয়েছিলেন তিনি।

[৭] চলমান সিরিজে দ্বিতীয়বারের মতো স্টোকসের ডেলিভারিতে কুপোকাত হলেন ভারতীয় দলনেতা। ফলে টেস্টে কোহলিকে নিজের প্রিয় শিকারে পরিণত করলেন এই ইংলিশ অলরাউন্ডার। সবমিলিয়ে পাঁচবার তিনি নিয়েছেন সময়ের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যানের উইকেট। স্টোকস চারবার করে আউট করেছেন মাইকেল ক্লার্ক, ফ্যাফ ডু প্লেসি, ডিন এলগার ও চেতেশ্বর পূজারাকে।

[৮] বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের অভিষেক আসরে কোহলির এটি চতুর্থ শূন্য। জাসপ্রিত বুমরাহর সঙ্গে ভারতের হয়ে যৌথভাবে তালিকার শীর্ষে আছেন তিনি। পাঁচটি করে শূন্য নিয়ে সামগ্রিকভাবে এক নম্বরে আছেন পাঁচজন। তারা হলেন শান মাসুদ, শাহিন আফ্রিদি, আইনরিখ নরকিয়া, প্যাট কামিন্স ও কুশল মেন্ডিস।
স/ক্রিকইনফো

সর্বাধিক পঠিত