প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] ঘাটাইলে বসতবাড়ি ফিরে পেতে বিধবার সংবাদ সম্মেলন

আব্দুল লতিফ: [২] ঘাটাইলে মুক্তিযোদ্ধার বেদখল থেকে নিজ বসতবাড়ি ফিরে পেতে সংবাদ সম্মেলন করেছেন ভূক্তভোগী পরিবার।

[৩] মঙ্গলবার বিকেলে ঘাটাইল প্রেস ক্লাবে এসে এ সংবাদ সম্মেলন করেন তারা। ওই বিধবার নাম মোছাঃ রহিমা বেগম। সে ঘাটাইল উপজেলার আনেহলা ইউনিয়নের কোলাহা গৌরাঙ্গি গ্রামের মৃত আব্দুর রশিদের স্ত্রী।

[৪] সংবাদ সম্মেলনে বিধবা রহিমা বেগম জানান, আমার স্বামী জমি ক্রয় করার পর থেকে ভোগ দখল করতে থাকি। এরই মধ্যে ভূঞাপুর উপজেলার গোবিন্দাসি গ্রামের ইকরাম উদ্দিন তারা মৃধা মুক্তিযোদ্ধার দাপট দেখিয়ে আমার স্বামীর নামে রেজি:কৃত বসতবাড়ির জমি বেদখল করেন। এ বিষয়টি সুবিচারের জন্য গত ১৬ ফেব্রুয়ারি ঘাটাইল উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কাছে লিখিত অভিযোগ করি। অভিযোগের একটি কপি উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যানকেও দেই। এতে তারা মৃধা ক্ষিপ্ত হয়ে পার্শ্ববর্তী ভূঞাপুর উপজেলা থেকে দেশীয় অস্ত্র সজ্জিত সন্ত্রাসী ভাড়া করে এনে আমার বসত বাড়ি ভাংচুর করে ও প্রাণনাশের হুমকী দেয়। বিষয়টি ভাইস চেয়ারম্যান কাজী আরজুকে জানাই। পরে তিনি তা সুরাহার চেষ্টা করেন। কিন্তু এতে তারা মৃধা তার কথায় তোয়াক্কা না করে মুক্তিযোদ্ধার প্রভাব খাটিয়ে মিথ্যা অভিযোগে ভূঞাপুরে মানববন্ধন ও সংবাদ সম্মেলন করেন। এ ঘটনায় অসহায় বিধবা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন বলে তারা দাবি করেন। সংবাদ সম্মেলনে বিধবার পক্ষে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন তার ছেলে কামাল হোসেন।

[৫] এ সময় উপস্থিত ছিলেন- ফিরোজা বেগম, হাসনা বেগম, ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি ফরিদ তালুকদার, শিউলি বেগম প্রমুখ।

[৬] ভাইস চেয়ারম্যান কাজী আরজু ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, রহিমা বেগমের জমি সংক্রান্ত সমস্যাটি সমাধানের জন্য আমি তারা মৃধার সঙ্গে যোগাযোগ করি। এতে সে আমার কথায় গুরুত্ব না দিয়ে আমাকেই হেয় করার জন্য ভুঞাপুরে মানববন্ধন করেছে বলে শুনেছি। এই জমির বিষয়ে তারা মৃধা মামলা করলে রহিমার স্বামীর পক্ষেই রায় প্রদান করেন আদালত। এ ঘটনায় ভূক্তভোগি পরিবার প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ করেছেন। সম্পাদনা: হ্যাপি

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত