প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] জো বাইডেন ডেমোক্রেট ঐতিহ্যই রক্ষা করেছেন, উদারপন্থী দলটির যুদ্ধবিরোধী ইমেজ থাকলেও তাদের প্রেসিডেন্টদের যুদ্ধের ইতিহাস নতুন নয়

আসিফুজ্জামান পৃথিল: [২] ডোনাল্ড ট্রাম্প একজন যুদ্ধবাজ মানুষ। তিনি যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হলে সারা বিশ্বে রক্তগঙ্গা বয়ে যাবে। ২০১৬ সালে এ কথা যেসব রাজনৈতিক বিশ্লেষক বলেছিলেন, তারা ভুল ছিলেন। ডোনাল্ড ট্রাম্প ৯০ দশকের পর প্রথম মার্কিন প্রেসিডেন্ট যিনি বিদেশে কোনও যুদ্ধের সূচনা করেননি। তার নির্দেশেই ২০ বছর পর সেনা সরে আসে আফগান ভূমি থেকে, তালিবানদের সঙ্গে শান্তি আলোচনাও চলমান।

[৩] তবুও ট্রাম্প একজন যুদ্ধবাজ। ২০২০ সালের নির্বাচনী প্রচারেও ডেমোক্রেটদের মুখে মুখে এ কথা ঘুরেছে। বাইডেন আসবেন, পৃথিবীতে যুদ্ধ বন্ধ হয়ে শান্তির সুবাতাস বইবে। মোটামুটি এই ছিলো প্রতিশ্রুতি। কিন্তু জো বাইডেন ক্ষমতায় আসার ১ মাসেই সিরিয়ায় হামলার নির্দেশ দিয়েছেন তিনি।

[৪] তবে বাইডেন প্রথম ডেমোক্রেট প্রেসিডেন্ট নন যিনি ক্ষমতায় এসে কোনও দেশে হামলার নির্দেশ দিয়েছেন। সিরিয়ান গৃহযুদ্ধের সূচনার সময় বাইডেন ছিলেন ভাইস প্রেসিডেন্ট। তার প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামাকে অনেক বিশেষজ্ঞই এই যুদ্ধ শুরুর জন্য সরাসরি দায়ি করে থাকেন। ওবামা অবশ্য নোবেলও পেয়েছেন।

[৫] রুজভেল্টের নির্দেশে জাপানে পারমাণবিক হামলা হয়েছে, ক্লিনটন ইরাকে হামলা করেছেন, ওবামা সিরিয়া আর লিবিয়ায়। যুক্তরাষ্ট্রের কোনও প্রেসিডেন্ট সবার আগে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টই। এরপর হয়তো আসে অন্য গল্পগুলো।

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত