প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] ঋণখেলাপিদের সামাজিকভাবে চিহ্নিত ও বয়কট করার প্রক্রিয়া শুরু হবে সংশোধিত ব্যাংক-কোম্পানি আইনের মাধ্যমে

আমিরুল ইসলাম: [২]বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ড. সালেহউদ্দিন আহমেদ বলেন, ব্যাংক-কোম্পানি আইন সংশোধনের সঙ্গে প্রয়োগের প্রক্রিয়া না থাকলে ঋণখেলাপিরা ফাঁকফোঁকর দিয়ে বের হয়ে যাবে।

[৩] সবচেয়ে বড় বিষয় হচ্ছে তথ্যগুলোকে কনসুলেট করতে হবে। একটি জায়গায় যেন সবকিছু জানা যায়। উন্নতে দেশগুলোতে সোশ্যাল সিকিরিউটি নাম্বার থাকে। সেটা চেক করলে সব তথ্য বেরিয়ে আসে। তথ্য নিশ্চিত করতে না পারলে এবং কোন এজেন্সি থেকে কি কাজ করলো সেটা না জানালে এই আইন প্রয়োগ করা কঠিন হবে। আইন করে তালিকা করে বলে দিতে হবে কারা কারা এই আইন প্রয়োগের দায়িত্বে থাকবে।

[৪] সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা ড. এবি মির্জ্জা আজিজুল ইসলাম বলেন, ব্যাংক কোম্পানি আইন ১৯৯১ এর অধিকতর সংশোধনকল্পে প্রীত আইন ঠিক আছে কিন্তু বাস্তবায়ন কতোটুকু হয় সেটা দেখার বিষয়। একদিকে ঋণ খেলাপিদের সুযোগ দেওয়া হচ্ছে অন্য দিকে আইনের সংশোধন করা হচ্ছে।

[৫] রূপালী ব্যাংকের সাবেক চেয়ারম্যান ড. আহমদ আল কবির বলেন, সংশোধিত ব্যাংক আইন বাস্তবায়ন খুব সহজ কাজ নয়। আইন অমান্য করলে শাস্তিযোগ্য অপরাধ বলে গণ্য হবে, এই বিধান রাখা উচিত। সম্পাদনা: আসিফুজ্জামান পৃথিল

 

 

 

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত