প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত প্রায় ৫ লক্ষ খামারিকে আর্থিক প্রণোদনা দিয়েছে সরকার: মৎস্য ও প্রানিসম্পদ মন্ত্রী

শাহীন খন্দকার: [২] রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ খাতে আর্থিক প্রণোদনা প্রদান অনুষ্ঠানে মৎস্য ও প্রাণীসম্পদ মন্ত্রনালয়ের মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম এ কথা বলেন। মন্ত্রী আরও বলেন, আমরা একটি উন্নত ক্ষুধা ও দারিদ্রমুক্ত বাংলাদেশ গড়তে চাই। বাংলাদেশের জনগণকে পুষ্টি সমৃদ্ধ খাবার দিতে চাই। আমাদের সন্তানদের মেধা যদি বৃদ্ধি ও সৃজনশীল করতে হয়, তাহলে তাদেরকে মাছ, মাংস, ডিম খাওয়াতে হবে। আমাদের মাছ এখন আর ঝুঁকিপূর্ণ নয়।

[৩] এটাই জাতির জন্য এখন সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ। ইনশাল্লাহ প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে আমরা সেই চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করবো। এই চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করে বাংলাদেশকে সত্যিকারের অর্থে একটি উন্নত জাতিতে রূপান্তরিত করবো। আরও বলেন, বর্তমান সরকারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নির্বাচনী ইশতেহারের অঙ্গীকার পুরনে পুষ্টি নিশ্চিত করতে কাজ করছে ।

[৪] প্রাণিজ আমিষ উৎপাদনকারীদের পণ্য নিয়ে গুজব সৃষ্টি করছে একটি মহল যার কারণে কৃষকরা ক্ষতির সম্মুখীন হয়। তিনি বলেন, মৎস্য ও প্রাণীসম্পদ খাতে করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত ৪ লক্ষ ৮৫ হাজার ৪৭৬ জন খামারিকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার হিসাবে মোট ৫৬৮ কোটি ৮৬ লক্ষ ৪১ হাজার ২৫০ টাকা আর্থিক প্রণোদনা দিয়েছে সরকার।

[৫] মন্ত্রী বলেন, খামারিদের ভাগ্য উন্নয়ণে প্রধানমন্ত্রী নিরলস কাজ করে যাচ্ছেন। দেশের ৪৬৬টি উপজেলা থেকে যাচাইকৃত প্রাণীসম্পদ খাতের ৪লক্ষ ৭হাজার ৪০২ জন খামারিকে (ডেইরী,লেয়ার মুরগী, পোল্ট্রি মুরগী, সোনালী মুরগী, ব্রয়লার মুরগী ও হাস খামারীদের জন্য। এছাড়াও ১৫টি ক্যাটাগরিতে ৪৬৮ কোটি ৮৬ লক্ষ ৪১ হাজারের উপরে দেওয়া হয়েছে।

[৬] এছাড়াও ৭৫টি উপজেলা হতে যাচাইকৃত মৎস্য খাতের ৭৮ হাজার ৭৪ জন খামারিকে (মৎস্য চাষি, চিংড়ি চাষি ও কাকঁড়া/কুচিঁয়া সংগ্রাহকদের) ৭টি ক্যাটাগরিতে ভাগ করে ১০০ কোটি টাকা প্রণোদনা দেওয়া হয়েছে। মন্ত্রী বলেন, প্রাণীসম্পদ খাতের খামারিদের মধ্যে ৩লক্ষ ১ হাজার ৩৫৩ জন ডেইরি খামারি,৯৭ হাজার ৮২৩ জন মুরগী খামারি এবং ৮ হাজার ২২৬ জন হাস খামারিকে প্রণোদনা দেওয়া হয়েছে। এসব প্রণোদনার অর্থ খামারিদের তাৎক্ষণিক ভাবে সরাসরি নগদ, বিকাশ ও ব্যাংক হিসাবে প্রেরণ করা হয়েছে।

[৭] মন্ত্রী আরও বলেন, নির্ধারিত লক্ষ্যমাত্রার অবশিষ্ঠ খামারিদের পর্যায়ক্রমে পরবর্তী ধাপে প্রণোদনা দেওয়ার বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। শেখ হাসিনার শাসনামলের উন্নয়ণের ইতিহাস স্বর্ণাক্ষরে লেখা থাকবে ইতিহাসের পাতায় বললেন মন্ত্রী। অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান, ধীরেন্দ্র নাথ শম্ভু এমপি, স্বাগত বক্তব্য রাখেন প্রাণী সম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব রওনক মাহমুদ প্রমুখ ।

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত