প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ছিঃ ছিঃ সৌদিরা এত খারাপ!

ডেস্ক রিপোর্ট : সৌদি আরবের রাজধানী রিয়াদে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাসের আইন সহকারী মোঃ মামুনুর রশিদ তার ভেরিফাইড পেজ থেকে ‍‍” বাংলাদেশ – সৌদিআরব সম্পর্ক বহুযুগের, বহুদিনের” শিরোনামে একটি পোস্ট করেন। বর্তমানে সৌদি আরব সম্পর্কে আমরা সবসময় নেতিবাচক খবরই পাই। আসলে সৌদি আরব সম্পর্কে কতটুকুই-বা আমরা জানি! এই প্রশ্ন রেখে তিনি লিখেন, আমি আপনি কয়টার খবর জানি? জানি শুধু চুদির ভাই বলে গালি দিতে। ভিনদেশে আমাদের পক্ষে এই মামলার জন্য তথ্য প্রমান কালেকশন করা এক প্রকার দুরহ। আপনি সৌদিকে যেভাবে চিন্তা করেন বাস্তবে সৌদি যদি তেমনই হতো তাহলে তারা তো তদন্তসহ সব বিষয়েই প্রভাব বিস্তার করতে পারতো। কিন্তু তারা তা করেনি। সৌদি কর্তৃপক্ষ এজন্য ধন্যবাদ পাওয়ার উপযুক্ত। পাশাপাশি এই মামলা নিষ্পত্তিতে মান্যবর রাষ্ট্রদূতসহ দূতাবাসের সংশ্লিষ্ট সকলেই অসামান্য অবদান রাখায় ধন্যবাদ পাওয়ার উপযুক্ত।

আমাদেরসময়.কমের পাঠকদের জন্য পোস্টটি নিচে হুবহু দেওয়া হলো:

১। বাংলাদেশীকে হত্যার দায়ে কোন সৌদির প্রথম মৃত্যুদন্ডের রায় নয় এটি (আবিরন হত্যা)। আপনারা হয়ত জানেন না। দূতাবাসের তত্ত্বাবধানে এমন আরো হত্যা মামলা পরিচালনা করে মৃত্যুদন্ডের রায় পাওয়া গিয়েছে।

২। সৌদির বিচার ব্যবস্থায় কোন ব্যক্তির রাইটস/ অধিকার ক্ষুণ্ণ হলে প্রাইভেট রাইট ও পাবলিক রাইটস ভংগের দায়ে দুই এংগেলেই বিচার হয়। যেমন হত্যার অপরাধ সংগঠনের দায়ে আইন শৃংখলা বিনষ্ট করায় অপরাধীকে রাষ্ট্র কর্তৃক একটি সাজা দেয়া হবে। আবার নিহত ব্যক্তির ওয়ারিশদের অধিকার থাকবে এই অপরাধের বিচার চাওয়ার। নিহত ব্যক্তির ওয়ারিশগণ মামলা দায়ের না করলেও অপরাধ সংগঠিত হওয়ায় রাষ্ট্র নিজেই মামলা দায়ের করবে এবং তাদের প্রসেস শেষ করবে। তবে নিহতের পরিবারও আইন অনুযায়ী হত্যার বিপরীতে অপরাধীর মৃত্যুদণ্ড চাইতে পারে, কিংবা এমনিতেই ক্ষমা করে দিতে পারে, কিংবা কিছু ক্ষতিপূরণ নিয়েও ক্ষমা করে দিতে পারে।

 

৩। বর্তমানে সৌদির আধুনিক ইলেক্ট্রনিক ও অত্যাধুনিক প্রযুক্তিগত নানা সুবিধা বিদ্যমান থাকায় অপরাধ করে কেউ পার পাওয়া কষ্টকর। দ্রূত বিচারকার্য শেষ হওয়ার দিক দিয়ে সৌদির সুনাম সুবিদিত। আপনি হয়ত চিন্তাও করেন না যে মামলায় হাজিরা দেয়ার পর পরই আদালতে আজ যা হয়েছে তা আপনার মোবাইলেই লিখিত আকারে পাবেন। আলোচিত আবিরন হত্যার মামলার রায় ও আমরা তেমনি পেয়েছি। শুধু রায়ের জন্য যুগের পর যুগ অপেক্ষা করতে হয়নি। (সত্যি কথা বলতে কি আমি যেদিন প্রথম রিয়াদ ক্রিমিনাল কোর্টে যাই, সেদিন কোর্টের ব্যবস্থাপনা দেখে আমার প্রথমে মনে হয়েছিল আমি কি কোন ৫ তারকা হোটেলে প্রবেশ করলাম কিনা? এজলাস দেখে তো আমার মুখে আওয়াজই বের হচ্ছিলনা। এমনিতেই মনে হচ্ছিল যে এখানে আস্তে কথা বলতে হবে, এটা ভদ্র লোকের যায়গা।)

 

৪। যা বলছিলাম, এর আগেও এমন রায় হয়েছে। হয়ত আপনি জানেন না। আপনি হয়ত রাজনৈতিকসহ নানা কারনে সৌদির অনেক বিষয়েই বিরোধিতা করেন এবং সবাইকে এক পাল্লায় মাপেন। ফলে আপনি এক চোখেই দেখেন এবং অনেক কিছুই জানেন না। আপনি এও জানেন না যে প্রতিবছর কত দানশীল ব্যক্তি গোপনে ঋণখেলাপীর ঋণ পরিশোধ করে দিয়ে ঋণীকে জেল হতে মুক্ত করার ব্যবস্থা করে। এমনকি এটাও জানেন না যে কোন এক সৌদি নাগরিককে হত্যার দায়ে এক বাংলাদেশীকে মৃত্যুদণ্ড থেকে রেহাই দিয়ে এখানকার মানুষের অর্থে মৃত সৌদির পরিবারকে ক্ষতিপূরণ প্রদান করে জেল হতে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। এই কদিন আগেও অনলাইনে এক বাংলাদেশীকে দিয়্যাতের অর্থ পরিশোধ করে মুক্ত করতে অনুরোধ জানিয়ে সরকারী বিজ্ঞাপন প্রকাশ হতে দেখেছি ।

 

৫। আমি আপনি কয়টার খবর জানি? জানি শুধু চুদির ভাই বলে গালি দিতে। ভিনদেশে আমাদের পক্ষে এই মামলার জন্য তথ্য প্রমান কালেকশন করা এক প্রকার দুরহ। আপনি সৌদিকে যেভাবে চিন্তা করেন বাস্তবে সৌদি যদি তেমনই হতো তাহলে তারা তো তদন্তসহ সব বিষয়েই প্রভাব বিস্তার করতে পারতো। কিন্তু তারা তা করেনি। সৌদি কর্তৃপক্ষ এজন্য ধন্যবাদ পাওয়ার উপযুক্ত। পাশাপাশি এই মামলা নিষ্পত্তিতে মান্যবর রাষ্ট্রদূতসহ দূতাবাসের সংশ্লিষ্ট সকলেই অসামান্য অবদান রাখায় ধন্যবাদ পাওয়ার উপযুক্ত।

 

৬। আপনি কি জানেন বাংলাদেশী খুজে পাওয়া যাবেনা সৌদির এমন কোন গ্রাম/ শহর পাওয়া দুষ্কর? আমাদের একে অপরের প্রতি ভালোবাসা না থাকলে এটা কি সম্ভব হতো? একদল লোক আছে যারা সৌদির কোন দোষ পাইলেই তিল কে তাল করতে পছন্দ করে। ইনিয়ে বিনিয়ে নানা কথা বলবে।

 

৭। একসাথে থাকতে গেলে নানা ঘটনা দুর্ঘটনা ঘটতেই পারে, এতে করে সেই জাতির সকলেই দোষী নয়। ভালো মন্দ মিলিয়েই আমরা। সৌদি- বাংলা সম্পর্ক দীর্ঘস্থায়ী হোক। আমাদের ভালোবাসা আরো বৃদ্ধি পাক।

মোঃ মামুনুর রশিদ
রিয়াদ, ১৫/০২/২০২১

বাংলাদেশ – সৌদিআরব সম্পর্ক বহুযুগের, বহুদিনের
১। বাংলাদেশীকে হত্যার দায়ে কোন সৌদির প্রথম মৃত্যুদন্ডের রায় নয় এটি…

Posted by Mamonur Rashid on Monday, February 15, 2021

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত