প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

শওগাত আলী সাগর: করোনার টিকা যেহেতু গণটিকা দানের চিন্তা মাথায় রেখে পরিকল্পনা করা হয়েছে, এর জনপ্রতি ভায়াল ব্যবহার করা অসম্ভব ব্যাপার

শওগাত আলী সাগর : বিপুল উৎসাহ আর উদ্দীপনায় মাকে নিয়ে  কোভিডের টিকা নিয়েছেন আমাদের এক বন্ধু। সেই খবর জানানোর মধ্যেই ছোট্ট একটা প্রশ্ন করলেন তিনি। আচ্ছা, একটা টিকা তারা দশ জনকে দিচ্ছে কেন? একটা টিকা তো একজনকেই দেওয়ার কথা। সাধারণত টিকা প্রয়োগের বেলায় অধিকাংশ ক্ষেত্রেই একেকজনের জন্য একটি ভায়াল ব্যবহার করা হয়। কাজেই বন্ধুর প্রশ্নটি অযৌক্তিক কিছু নয়। করোনার টিকা যেহেতু গণটিকা দানের চিন্তা মাথায় রেখে পরিকল্পনা করা হয়েছে, এর জনপ্রতি ভায়াল ব্যবহার করা অসম্ভব ব্যাপার। ফলে এখন পর্যন্ত ব্যবহৃত হচ্ছে এমন সবকটি টিকাই একটি ভায়াল বহুজনের জন্য ব্যবহার করা হচ্ছে।

বন্ধুটিকে বললাম, ‘একটি টিকা দশজনকে দেওয়া হচ্ছে’- বিষয়টি আসলে এরকম নয়। ভায়াল প্রতি ডোজ নিয়ে ফাইজার বায়োএনটেকের সাম্প্রতিক জটিলতার কথা মনে পড়লো। ফাইজারের টিকা প্রথমটায় প্রতি ভায়ালে ৫ ডোজ করে হিসাব করা হয়েছিলো। পরে বলা হয়েছে, ৫ নয়, প্রতি ভায়ালে ৬ ডোজ করে আছে। মানে প্রতি ভায়ালে ৬ জনকে টিকা দেওয়া যাচ্ছে। ফাইজারের টিকা ব্যবহারকারী দেশগুলো এখন লেবেল পরিবর্তন করে ৫ এর জায়গায় ৬ করে নিচ্ছে। প্রতি ভায়াল থেকে ৫ এর বদলে ৬ ডোজ টিকা সংগ্রহ করতে হচ্ছে বলে তাদের বিশেষ রকমের সিরিঞ্জও ব্যবহার করতে হচ্ছে।

অক্সফোর্ডের টিকার ব্যবস্থাপনা এবং পরিবহন ফাইজারের মতো জটিল নয়। আমার অক্সফোর্ডের যে টিকাটি (কোভিশিল্ড) বাংলাদেশে দেওয়া হচ্ছে সেটি প্রতি বক্সে ১২০০টি করে ভায়াল থাকে। প্রতি ভায়ালে থাকে ৫ মিলি টিকা। প্রতিটি ভায়াল থেকে প্রতিজনকে ০.৫ মিলি করে ১০ ডোজ হিসেবে ১০ জনকে টিকা  দেওয়া হয়। তবে সতর্কতা হচ্ছে, প্রতিটি ভায়াল খোলার চার ঘণ্টার মধ্যেই এটি ব্যবহার করে ফেলতে হয়। এর চেয়ে বেশি সময় খোলা থাকলে এটি আর ব্যবহার করা হয় না। অক্সফোর্ডের টিকার ০.৫ মিলি করে দুটি ডোজ নিতে হয়। কোভিডের টিকা যেহেতু নতুন, এ নিয়ে মানুষের মনে নানা রকম কৌত‚হল, প্রশ্ন থাকবে। এগুলোর উত্তর সহজে পাওয়া গেলে মানুষের মনে আর সংশয় তৈরি হবে না। লেখক : সিনিয়র সাংবাদিক

সর্বাধিক পঠিত