প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

এবার নিষিদ্ধ হলো অনন্য মামুনের মেকআপ

ইমরুল শাহেদ: রাহু যেন পরিচালক অনন্য মামুনের পিছু ছাড়ছে না। নবাব এলএলবি ছবিতে পুলিশকে বাজেভাবে উপস্থাপন করে তিনি কারাগারে গেছেন। একইসঙ্গে আজীবনের জন্য নিষিদ্ধ হয়েছেন পরিচালক সমিতিতে। নবাব এলএলবি ছবিটি নিয়ে শিল্পীদের অসন্তোষও মোকাবিলা করতে হয়েছে তাকে। এবার তিনি জটিলতায় পড়েছেন মেকআপ নামের একটি ছবি নিয়ে। এই ছবিটি সেন্সর বোর্ড নিষিদ্ধ করেছে। সেন্সর নীতিমালা অনুসারে তিনি আপিল করতে পারবেন।

তবে ছবিটি নিষিদ্ধ হওয়া নিয়ে তার মধ্যে কোনো হতাশা বা উচ্ছাস নেই। তিনি বর্তমানে ঢাকার বাইরে রয়েছেন। জানিয়েছেন, তিনি শুনেছেন। কেন ছবিটি নিষিদ্ধ হলো? সেন্সর বোর্ড সদস্য খোরশেদ আলম খসরু বলেন, ‘মেকআপ আমাদের চলচ্চিত্রশিল্পের বিরুদ্ধের একটা সিনেমা। এতে সিনেমার মানুষদের খুবই খারাপভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে, যেটা কখনোই কাম্য নয় এবং প্রদর্শনের অনুপযুক্ত। তাই সেন্সর বোর্ডের সবার সর্বসম্মতিক্রমে মেকআপ নিষিদ্ধ করা হয়েছে।’ তিনি বলেন, ‘চলচ্চিত্রের মানুষ মানেই খারাপ এটা ভাবা ঠিক নয়।

আমরা চাই না সারা দেশের মানুষ ছবিটি দেখে তাদের মধ্যে ভুল কোনো ধারণা তৈরি হোক। তাই ছবিটি নিষিদ্ধ করা হয়েছে।’ পক্ষান্তরে অনন্য মামুন বলেন, ‘আমি শুনেছি এমন একটা সিদ্ধান্ত হয়েছে। যদি সত্যিই সেটা হয় তাহলে অন্যায় হবে আমার সঙ্গে। আমি একটা সাধারণ মেয়ের নায়িকা হয়ে ওঠার আগের ও পরের ঘটনা দেখিয়েছি। কাউকে ছোট করার ইচ্ছে নিয়ে ছবি করিনি।’ ছবির অন্যতম অভিনেতা তারিক আনাম খান এই ঘটনা শুনে হতাশ হয়েছেন। বলেন, ‘আমার চরিত্রটা একজন ফিল্মস্টারের, যে ইন্ডাস্ট্রি নিয়ন্ত্রণ করে। খারাপ মানুষও বলা চলে। একটি সিনেমায় তো খল চরিত্র থাকবেই। সে কখনো পুলিশ, কখনো মন্ত্রী বা কখনো উকিল হতে পারে। তাই বলে হুট করে চরিত্রটিকে ব্যক্তিগতভাবে নিয়ে ছবি নিষিদ্ধ করাটা কি ভালো দেখায়!’

সেন্সর বোর্ড সচিব মমিনুল হক বলেন, ‘এই মুহূর্তে এই নিয়ে কোনো তথ্য আমরা আনুষ্ঠানিকভাবে দিতে পারছি না। আমরা এই নিয়ে এখনও কোনো চিঠিও ইস্যু করিনি।’

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত