প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১]হাইটেক টেকনোলজি ব্যবহারের মধ্য দিয়ে দেশ ও সভ্যতাকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার লক্ষ্যে কাজ চলছে: বিটাক পরিচালক

শরীফ শাওন: [২] বাংলাদেশে বিশ্বের নতুন টেকনোলজির প্রচলন, প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে বিভিন্ন যন্ত্র বা যন্ত্রপাতি উদ্ভাবন এবং দক্ষ জনবল তৈরি করাই আমাদের মুল লক্ষ্য। উন্নত টেকনোলজি ব্যবহার দক্ষতা, কর্মসংস্থান বৃদ্ধি ও ফরেন কারেন্সি সেভ করার মধ্য দিয়ে দেশকে জাপান বা আমেরিকার মতো উন্ন দেশে রুপান্তর সম্ভব বলে মনে করেন বাংলাদেশ শিল্প কারিগরি সহায়তা কেন্দ্রের প্রকৌশলীরা। [৩] বিটাক পরিচালক প্রকৌশলী ড. এহসানুল করিম আরও বলেন, একটি কারখানা স্থাপন করলে তার অধিকাংশ অর্থ ব্যয় হয় বিদেশ থেকে উন্নত যন্ত্র আমদানি করতে। আমাদের গবেষণাগারের সিএনসি (সিএনসি লেদ, মিলিং ও রাউটার) মেশিন নিজেরাই তৈরি করেছি, এতে ৫ কোটি টাকা সেভ হয়েছে। [৪] তিনি বলেন, আমরা মূলত তিনটি বিষয়ে ট্রেনিং দিয়ে থাকি। ক্যাপ ক্যাম (কম্পিউটিরাটি ডিজাইন ও ম্যানুফ্যাকচারিং), ম্যাকাট্রোনিক্স এবং হাইড্রোলিক্স ও নিউমেট্রিক্স। এগুলো সাম্প্রতিক বিশ্বে সবচেয়ে আধুনিক টেকনোলজি। বাংলাদেশে অত্যাধুনিক মেশিন সংকটে এই ট্রেনিং সহজলভ্য না। [৫] মার্চে কফি ভেনডিং মেশিন তৈরি সম্পন্ন হচ্ছে জানিয়ে বলেন, গবেষণা তালিকায় রয়েছে ফর্ক লিফটার, সেন্টি ফিউজ ও বয়লারসহ আরও অনেক যুগোপযোগী প্রযুক্তি। এসকল প্রযুক্তি গবেষণায় আমাদের প্রকৌশলীসহ বিশ্ববিদ্যালয় এবং বাহিরের এক্সপার্টরা জড়িত রয়েছেন। এসকল প্রযুক্তি আমরা উদ্যোক্তাদের সরবরাহ করি তারা যেন উৎপাদনের মাধ্যমে বাজারজাত করতে পারেন। , আমাদের দেশের পারিপার্শ্বিকতা মাথায় রেখে বিদেশি পণ্য আমরা স্থানীয় গবেষণার মাধ্যমে ডিজাইন তৈরি করি। সম্পাদনা: তাপসী রাবেয়া

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত