প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

শওগাত আলী সাগর : টিকা নিয়ে বাংলাদেশ সত্যিকার অর্থেই উৎসব করার অধিকার রাখে

শওগাত আলী সাগর : করোনার টিকা দেওয়াটা মনে হয় বাংলাদেশের উৎসবে পরিণত হয়েছে। মন্ত্রী, সচিব, সাংবাদিকসহ উচ্চ পর্যায়ের লোকদের টিকা দেওয়ার ছবিসহ খবর মিডিয়া আর সোশ্যাল মিডিয়ায় বেশ দৃশ্যমান। যাদের ছবি মিডিয়ায় যাওয়ার সুযোগ নেই, তারা সোশ্যাল মিডিয়াকেই বেছে নিয়েছেন।

টিকা নিয়ে বাংলাদেশ সত্যিকার অর্থেই উৎসব করার অধিকার রাখে। ‘করোনার টিকা পেতে সরকার কিছুই করছে না – এমন সমালোচনার মধ্যে এখন দেখা যাচ্ছে- অনেক শিল্পোন্নত ধনী দেশের চেয়েও বাংলাদেশের টিকার উপস্থিতি অনেক বেশি। কিন্তু সমস্যা হচ্ছে- টিকা যে  একটি  স্বাস্থ্য সমস্যাগত বিষয়, সেটি কেউ বিবেচনায় রাখছেন বলে মনে হচ্ছে না। মন্ত্রী, মেয়রদের টিকা দেওয়ার সময় ছবি তোলার জন্য যে ভীড় দেখা যাচ্ছে, সেটি যে করোনার টিকার স্পিরিটের বিপরীত, সেটি কেউ বিবেচনায় নিচ্ছেন না।

ফেসবুকে জাকিয়ার (সাংবাদিক জাকিয়া আহমেদ) ওয়ালে একটি ভিডিও এবং কয়েকটি ছবি দেখে নিজেকে কোনোভাবেই বিশ্বাস করাতে পারছিলাম না, এটি আসলে টিকা দেওয়ার চিত্র! জাকিয়া যদিও ছবিগুলো পোস্ট করার সময় মন্তব্য করেছেন, ‘একজন গণমাধ্যমকর্মী  হিসেবে লজ্জিত’, কিন্তু  কেন লজ্জিত সেটি ছবি দেখে পরিষ্কার হওয়া যাচ্ছিলো না। মন্তব্য পড়তে গিয়ে জানা গেলো- স্বাস্থ্যমন্ত্রী টিকা দিচ্ছেন, তার ছবি তোলা আর ভিডিও করার জন্য এই ভীড়। স্বাস্থ্যমন্ত্রী টিকা দিচ্ছেন- তার ছবি তুলতে এতো সাংবাদিক ভীড় করলেন কেন? তিনি যে এতোটা জনপ্রিয় সেটা তো আগে কখনোই বোঝা যায়নি।

ক্যামেরা হাতে কিংবা সেলফোনে ভিডিওরত যাদের  ছবিতে দেখা যাচ্ছে- তারা সবাই কি ঢাকার গণমাধ্যমকর্মী? উত্তর হ্যাঁ হলে, জাকিয়ার লজ্জা পাওয়াটা যৌক্তিক। একইসঙ্গে এই সাংবাদিক/ফটো সাংবাদিকদের পেশাদারিত্ব জ্ঞান নিয়ে প্রশ্ন করারও সুযোগ  তৈরি হয়। সেই প্রশ্ন আপাতত করলাম না। তার চেয়ে বরং ‘স্বাস্থ্যমন্ত্রীর টিকা দেওয়ার দৃশ্য ধারণ করার জন্য যদি সাংবাদিকরা এভাবে হুমড়ি খেয়ে পরেন, তাহলে প্রধানমন্ত্রীর ক্ষেত্রে কী হবে?’- এই প্রশ্ন করি। তখন তারা সত্যিই  কি করবেন? ফেসবুক থেকে

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত