প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] এমন অলরাউন্ডার মিরাজকেই চেয়েছিলাম: নান্নু

মাহিন সরকার: [২] অফস্পিনার মিরাজের মেধা ও প্রতিভা নিয়ে সংশয় থাকার কোনই কারণ নেই। কারণ সাড়ে চার বছর আগে টেস্ট অভিষেকে বল হাতে নিয়ে ৬ উইকেট দখলের পাশাপাশি প্রথম দুই টেস্টে ১৯ উইকেট শিকার করে রীতিমত হইচই ফেলে দিয়েছিলেন মেহেদি হাসান মিরাজ।

[৩] এর মধ্যে ২০১৬ সালের অক্টোবরে ঢাকার শেরে বাংলায় ইংলিশদের বিপক্ষে ১০৮ রানের প্রথম টেস্ট জয়ের নায়ক, রূপকারও এই অফস্পিনার। ম্যাচে ১৫৯ রানে ১২ উইকেট দখল করে টিম বাংলাদেশকে এক উদ্ভাসিত জয় উপহার দিয়ে ইতিহাসের পাতায় নিজের নামকে চির স্মরণীয় করে রেখেছিলেন মিরাজ।

[৪] কিন্তু ধারাবাহিকতায় কমতি থাকায় সর্বশেষ টেস্ট দলে তিনি ছিলেন না। গত বছর এই ফেব্রুয়ারি মাসে ঢাকার শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টেস্ট ম্যাচ খেলা হয়নি। এমনকি তারও আগে পাকিস্তানের বিপক্ষে রাওয়ালপিন্ডি টেস্টেও জায়গা হয়নি মেহেদি হাসান মিরাজের।

[৫] মাঝে ওয়ানডে আসর প্রেসিডেন্টস কাপ ও বঙ্গবন্ধু টি টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট হলেও করোনার কারণে ঘরোয়া ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে দীর্ঘ পরিসরের ক্রিকেট না হওয়ায় মিরাজের ফর্ম যাচাই-বাছাইয়ের কোনরকম সুযোগ ছিল না। তাই ওয়েষ্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজে এ অফ স্পিন অলরাউন্ডারের টেস্ট খেলাটা রীতিমত অনিশ্চিতই ছিল।

[৬] কিন্তু শেষ পর্যন্ত দলে রাখা হয় মিরাজকে। শুধু স্কোয়াডেই নয় চট্টগ্রাম টেস্টে এখন পর্যন্ত বাংলাদেশের সেরা পারফরমারও এ অলরাউন্ডার। ব্যাট ও বল হাতে সমান উজ্জ্বল ও কার্যকর পারফরমেন্স দেখিয়ে মিরাজ এখন জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়াম মাতিয়ে রেখেছেন। টেস্টে মুমিনুল বাহিনীকে চালকের আসনে বসাতেও এখন পর্যন্ত মিরাজই রেখেছেন অগ্রণী ভূমিকা।

[৭] আট নম্বর পজিসনে নেমেও যে টেস্ট সেঞ্চুরি করা যায়, মিরাজ তা চোখে আঙ্গুল দিয়ে দেখিয়ে দিয়েছেন। শুধু পারফরমই করেননি। অলরাউন্ডার মিরাজের সামনে এক দূর্লভ রেকর্ডের হাতছানি।

[৮] চট্টগ্রাম টেস্টের শেষদিন আর তিন উইকেটে পেলে স্পিনার মিরাজ টেস্ট ক্রিকেটে এক ম্যাচে সেরা অলরাউন্ড পারফরমার হিসেবে সর্বকালের সেরাদের পাশে নিজের নামকে স্বর্ণাক্ষরে লিখে রাখতে পারবেন।

[৯] বলার অপেক্ষা রাখে না একই টেস্টে শতরান ও ১০ উইকেট শিকারের দুর্দান্ত অলররাউন্ড পারফরমেন্সের অনন্য কৃতিত্ব আছে কেবল তিন জনের। ইমরান খান , ইয়ান বোথাম ও সাকিব আল হাসান। এ টেস্টে আর তিন উইকেট পেলে চতুর্থ পারফরমার হিসেবে ইমরান, বোথাম আর সাকিবের পাশে নাম লিখাবেন মিরাজও।

[১০] যাকে সর্বশেষ দুই টেস্ট খেলানো হয়নি, তাকে হঠাৎ সুযোগ দেয়া এবং তার কারণ ব্যাখ্যা করতে বলা হলে প্রধান নির্বাচক বলেন, আসলে আমরা মিরাজকে শুধু অফস্পিনার হিসেবে বিবেচনায় আনিনি। জানি তার অফস্পিন দিয়ে টেস্ট জেতানোর সামর্থ্য ও ক্ষমতা আছে। অতীতে সে তা করেও দেখিয়েছে। তবে আমরা এ সিরিজে মিরাজকে আসলে অলরাউন্ডার হিসেবে পেতে চেয়েছি এবং তার অলরাউন্ড পারফরমেন্সটাই চেয়েছি।

[১১] পরক্ষণে নান্নু বলেন, খুবই খুশির কথা যে মিরাজ আট নম্বরে নেমে সেঞ্চুরি করে সে সামথ্যের প্রমাণ দিয়েছে। সে দেখিয়ে দিয়েছে তার ব্যাটিং অ্যাবিলিটি আছে। যেটা ছিল আসলে আমাদের প্রত্যাশা। আমরা দলে একজন স্পিনিং অলরাউন্ডার খুঁজছিলাম।

[১২] সাকিব তো একাই ‘টু-থ্রি ইন ওয়ান’। এর বাইরে আরও একজনকে চেয়েছিলাম যার স্পিনারের পাশাপাশি ব্যাটিংটাও ভাল পারে এবং দলের সাফল্যে অবদান রাখতে পারে। আমি খুবই সন্তুষ্ট মিরাজ তা করে দেখিয়েছে। এবং চট্টগ্রাম টেস্টে দলকে দারুন সার্ভিস দিচ্ছে।

[১৩] পরিসংখ্যান জানাচ্ছে প্রথম ইনিংসে ৮ নম্বরে নেমে দারুণ শতরানের পাশাপাশি দুই ইনিংস মিলে মিরাজ এখ পর্যন্ত ৪+৩ = ৭ উইকেটও দখল করেছেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত