প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] নয়াপল্টনের চায়না টাউন মার্কেটের মালিককে গ্রেপ্তারের দাবিতে ৮ ফেব্রুয়ারি পল্টন থানা ঘেরাও করবে হকার্স ইউনিয়ন

সমীরণ রায়: [২] বৃহস্পতিবার ঢাকার মুক্তিভবনের মৈত্রী সম্মেলন কেন্দ্রে বাংলাদেশ হকার্স ইউনিয়নের এক সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক সেকেন্দার হায়াৎ বলেন, গত বছরের মার্চে করোনাকালে হকাররা লকডাউনে গৃহবন্দি হয়। তখন সংগঠন থেকে ১০ হাজার হকারের তালিকা প্রণয়ন করে সিটি করপোরেশন, ডিসি অফিস, সরকারের বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ে দেওয়া হয়। কিন্তু কোন জায়গা থেকে হকারদের আর্থিক সহযোগিতা দেওয়া হয়নি।

[৩] তিনি বলেন, হকাররা এখন ধার-দেনা করে ও চড়া সুদে লোন নিয়ে শীতের মালামাল কেনাবেচা করছে। কিন্তু গত ১ ফেব্রুয়ারি নয়াপল্টনে চায়না ডেভেলপারের মালিক বেলাল ও তার বাহিনী হকারদের কোটি টাকার মালামাল লুট করে নিয়ে যায়, দোকানপাট ভাঙচুর করে, ভয়ভীতি দেখায়।

[৪] তিনি আরও বলেন, মার্কেটে দোকান পাওয়ার আশায় গত ৩০ বছর ধরে বেলালকে মাসিকভিত্তিতে টাকা দিয়ে আসছে যা কয়েক কোটি টাকা হয়েছে। চায়না টাউন মার্কেটের স্থাপনার কাজ শেষের দিকে। বেলালের কাছে হকাররা দোকান চাইলে উল্টো তাদের ৩০ বছরের আত্মকর্মসংস্থান থেকে উচ্ছেদ হতে হয়েছে। ফলে পরিবার-পরিজন নিয়ে গভীর বিপাকে পড়েছে হকাররা।

[৫] এসময় ঘেরাও কর্মসূচির পাশাপাশি তারা ৫ দফা দাবি জানিয়েছে। দাবিগুলো হচ্ছে- পুনর্বাসন ছাড়া হকার উচ্ছেদ করা যাবে না ও হকার আইন প্রণয়ন, সন্ত্রাসী গডফাদার বেলালকে গ্রেফতার, ক্ষতিপূরণ বাবদ জনপ্রতি ১০ লাখ টাকা দিতে হবে, চায়না টাউন মার্কেটে হকারদের দোকান বরাদ্দ এবং হকার্স নেতা দেলোয়ার হোসেনকে নিঃশর্ত মুক্তি দিতে হবে।

সর্বাধিক পঠিত