প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] সরাইল-অরুয়াইল সড়কে চরম জনদূর্ভোগ, রাস্তাতেই মারা যাচ্ছে রোগী

আরিফুল ইসলাম: [২] দীর্ঘদিন সংস্কার না করায় ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল-অরুয়াইল আঞ্চলিক সড়কের প্রায় দুই কিলোমিটার এলাকার অধিকাংশ স্থানে খানাখন্দের সৃষ্টি হয়েছে। ফলে এ সড়কটি দিয়ে চলাচলকারী সরাইল উপজেলার অরুয়াইল ও পাকশিমুল এ দুটি ইউনিয়নের হাজার হাজার মানুষ ভোগান্তিতে শিকার হচ্ছে। জরাজীর্ণ সড়ক দিয়ে ঝুঁকি নিয়ে যান চলাচল করলেও বিশেষ করে বয়স্ক মানুষ ও রোগীদের নিয়ে দূর্ভোগের শেষ নেই। সময়মতো রোগীকে হাসপাতালে পৌঁছাতে না পারায় সড়কেই মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। কয়েকজন প্রসূতি মায়ের সন্তান প্রসবের ঘটনা ঘটেছে এ সড়কে।

[৩] বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন, পাকশিমুল ইউপি চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলামসহ স্থানীয় কয়েকজন সিএনজি অটোরিকশা চালক।

[৪] স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি) সরাইল উপজেলা কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, সরাইল-অরুয়াইল সড়কটির দৈর্ঘ্য প্রায় ১৪ কিলোমিটার। দীর্ঘদিন অপেক্ষার পর এর মধ্যে গত অর্থবছরে এলজিইডির অর্থায়নে ওই সড়কের সরাইল সদর থেকে চুন্টা ইউনিয়ন পর্যন্ত ৮কিলোমিটার ও কালিশিমুল এলাকা থেকে অরুয়াইল ইউনিয়নের সীমানা পর্যন্ত ৪কিলোমিটার কার্পেটিং করা হয়।

[৪] ওই সড়কের মাঝখানে হাওর এলাকা চুন্টা ইউনিয়নের ঘাগড়াজোর গ্রাম থেকে পাকশিমুল ইউনিয়নের ভূইশ্বর গ্রামের বাজার পর্যন্ত প্রায় দুই কিলোমিটার জরাজীর্ণ অবস্থায় থেকে যায়, কার্পেটিং বা সংস্কার করা হয়নি। ফলে এ সড়কে জনদূর্ভোগ রয়েই গেল। যার কারণে অপরিকল্পিত রাস্তা সংস্কারে জনদূর্ভোগ চরমে, কর্তৃপক্ষের উদাসীনতাকে দুষছে এলাকাবাসী।

[৫] সরেজমিনে দেখা যায়, সরাইল-অরুয়াইল সড়কের দুই প্রান্তে সংস্কার করা হয়েছে কিন্তু মাঝের অংশ সংস্কারহীন বেহাল অবস্থা।

[৬] উপজেলার সরাইল-অরুয়াইল সড়কের চুন্টা ঘাগড়াজোর ব্রীজ থেকে ভুইশ্বর বাজার পর্যন্ত প্রায় দুই কিলোমিটার অংশের বেহাল দশার জন্য এলাকাবাসী কর্তৃপক্ষের উদাসীনতাকে দায়ী করছেন। রাস্তার একাংশের শোচনীয় অবস্থার জন্য শিক্ষার্থী ও সাধারণ জনগণ ঝুঁকি নিয়ে উপজেলা সদরে যাতায়াত করছেন। ফসল কাটার মৌসুমে গ্রামের মানুষ হাওর থেকে পরিবহন করতে পারে না তাদের ফসল, এলাকার কোথাও আগুন লাগলে ফায়ার সার্ভিসের গাড়ি প্রবেশ করতে পারে না।

[৭] ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা এলজিইডি নির্বাহী প্রকৌশলী মো. সিরাজুল ইসলাম বলেন, সরাইল-অরুয়াইল রাস্তার ব্যাপারে সব কাগজপত্র পাঠানো হয়েছে। আশা করছি বিল পাস হলে আমরা কিছু দিনের মধ্যেই কাজ শুরু করতে পারবো।

[৮] সরাইল উপজেলা নিবার্হী অফিসার মো. আরিফুল হক মৃদুল বলেন, সরাইল-অরুয়াইল রাস্তাটি অতি গুরুত্বপূর্ণ। এলাকার মানুষের দুর্ভোগের কথা চিন্তা করে কিছুদিন আগে এলজিইডির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা রাস্তাটি পরিদর্শন করেছেন। কিছু সমস্যা ছিলো, আলোচনার মাধ্যমে সমাধান করা হয়েছে। দ্রুত সময়ে রাস্তাটির বাকি অংশের সংস্কার করা হবে। সম্পাদনা: অনন্যা আফরিন

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত