প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] ঘৃণিত ও ধিকৃতরাই দেশের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে ষড়যন্ত্র করছে: তথ্যমন্ত্রী

সমীরণ রায়: [২] আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ আরও বলেন, আওয়ামী লীগের ভিত্তি তৃণমূল পর্যায়ে, সুতরাং কাতুকুতু দিয়ে কোনো লাভ হবে না। পলাতক, যুদ্ধাপরাধ ট্রাইব্যুনালে যাদের বিচার হচ্ছে, তারা নিজেদের অর্থ দিয়ে মানুষ ভাড়া করে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে দেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছেন। এই চক্রের নেতৃত্বে অনেকেই রয়েছেন। দেশের একজন স্বনামধন্য আইনজীবীর ইহুদি মেয়ে জামাইও। সাম্প্রতিক কিছু রিপোর্ট এবং সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে আলোচনা তারই প্রমাণ।

[৩] তিনি বলেন, বিভিন্ন গণমাধ্যমে কিছু ভুল তথ্য কাট পেস্ট করে প্রতিবেদন প্রচার করা মানে দেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র ছাড়া আর কিছুই নয়। অতীতে যেমন বঙ্গবন্ধুর বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র হয়েছিল। এখনও দেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের হচ্ছে। দেশবাসীকে এই ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে সজাগ থাকতে হবে।

[৪] ড. হাছান মাহমুদ বলেন, করোনা মোকাবেলা করতে শেখ হাসিনা সক্ষম হয়েছেন। পৃথিবীর সব দেশে যখন ঋণাত্মক জিডিপির প্রবৃদ্ধি সেখানে আমাদের পজিটিভ। এটি অনেকের সহ্য হচ্ছে না। এখন নতুন খেলায় মেতে উঠেছে। এই খেলা খেলে কোনো লাভ হবে না। বিশ্বব্যাংক পদ্মা সেতু নিয়ে ষড়যন্ত্র করেছিল, তা ভেস্তে গিয়েছে। এ ষড়যন্ত্রও ভেস্তে যাবে।

[৫] তথ্যমন্ত্রী বলেন, ভাষা আন্দোলনে বঙ্গবন্ধুর অসামান্য অবদান ছিল। জিন্নাহ যখন উর্দুকে রাষ্ট্রভাষা ঘোষণা দিলে বঙ্গবন্ধু প্রতিবাদ করেছিলেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভাষার দাবিতে প্রথম সভার সভাপতিত্ব করেন বঙ্গবন্ধু। একুশে ফেব্রুয়ারিতে হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদে কারাগারে অনশন করেছিলেন তিনি। বঙ্গবন্ধুর সময়েও বিদেশে নানা অপপ্রচার করা হয়েছিল, যার মাধ্যমে বঙ্গবন্ধু হত্যার পটভূমি রচনা করা হয়।

[৬] বুধবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে বাংলাদেশ স্বাধীনতা পরিষদ আয়োজিত এক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত