প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

দেড় বছর তিন কৃষি আইন স্থগিত রাখতে চান মোদি

ডয়চে ভেলে: অবশেষে কৃষক আন্দোলনের সামনে অনেকটাই নতিস্বীকার করতে বাধ্য হলো নরেন্দ্র মোদি সরকার।

কৃষক আন্দোলনের চাপে পিছু হঠতে বাধ্য হলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। অনড় অবস্থান থেকে সরে এসে সরকারের প্রস্তাব, তারা দেড় বছর তিন বিতর্কিত কৃষি আইন স্থগিত রাখবে। কৃষক নেতারা চাইলে সুপ্রিম কোর্টে লিখিত হলফনামা দিতেও সরকার রাজি। বিনিময়ে কৃষকদের আন্দোলন প্রত্যাহার করতে হবে।

কৃষক সংগঠনগুলি এই প্রস্তাব সঙ্গে সঙ্গে প্রত্যাখ্যান করেনি। তারা এখন বৈঠক করে সিদ্ধান্ত নেবে। বৃহস্পতিবার নিজেদের মধ্যে বৈঠক সেরে শুক্রবার আবার সরকারের সঙ্গে আলোচনায় বসবেন কৃষক সংগঠনের নেতারা। তখন তারা সিদ্ধান্তের কথা জানিয়ে দেবেন। কৃষকরা এখনো যে দাবি নিয়ে নিজেদের মধ্যে আলোচনা করছেন, তা হলো, ফসলের ন্যূনতম সহায়ক মূল্য(এমএসপি) বাধ্যতামূলক করার জন্য আইন করা। যাতে সকলেই এই সহায়ক মূল্য মানতে বাধ্য হয়।

কৃষকদের দাবি ছিল, তিনটি কৃষি আইন বাতিল করতে হবে। কিন্তু সরকার এতদিন ধরে রাজি হয়নি। বরং তারা অনড় থেকে যথেষ্ট ইঙ্গিত দিয়েছিল যে, এই দাবি মানা সম্ভব নয়। প্রধানমন্ত্রী অসংখ্যবার জানিয়েছেন, তিনটি আইন কৃষকদের প্রভূত উপকার করবে। বিরোধীরা যা বলছে তা ঠিক নয়। বিজেপি-র তরফেও বারবার একই কথা প্রচার করা হচ্ছিল। এমনকি দেশের কৃষকদের একটা বড় অংশ যে কৃষি বিলের সমর্থনে, সে কথাও বলা হচ্ছিল। কিন্তু কৃষকরাও এক ইঞ্চি জমি ছাড়তে রাজি হননি। তারা নিজেদের দাবিতে নিয়ে অনড় থেকেছেন। অবশেষে সরকার দেড় বছরের জন্য কৃষি আইন স্থগিত রাখতে রাজি হয়েছে।

তার উপর কৃষকরা ২৬ জানুয়ারি ট্রাক্টর মিছিল করতে বদ্ধপরিকর ছিল। এটা ছিল মোদি সরকারের কাছে বিড়ম্বনার বড় কারণ। তারা সুপ্রিম কোর্টে নালিশও জানিয়েছিল। কিন্তু সর্বোচ্চ আদালত জানিয়ে দেয়, পুলিশ আগে এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিক। সরকার কোনোভাবে চাইছে না, ২৬ জানুয়ারি কৃষকরা দিল্লির রাস্তায় ট্রাক্টর মিছিল করুক। তা হলে পুরো প্রচার তাদের দিকে চলে যাবে। ফলে কৃষক বিক্ষোভ নিয়ে মোদি খুবই চাপে ছিলেন।

দ্বিতীয়বার পিছু হটল মোদি সরকার

গত ছয় বছরে একবারই পিছু হটেছিল মোদী সরকার। সেটা জমি অধিগ্রহণ বিল নিয়ে। ইউপিএ আমলের বিল চালু করতে চেয়েছিল সরকার। কিন্তু কৃষকদের বিক্ষোভের চাপে শেষ পর্যন্ত সরকার পিছিয়ে যায়। এবার কৃষি বিল নিয়েও তারা পিছু হঠতে বাধ্য হলো। গ্রন্থনা: ফরহাদ বিন নূর

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত