প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মিজান রেহমান : ট্রাম্পের শাসনামল এবং মুসলিম বিশ্ব

মিজান রেহমান : ডোনাল্ড ট্রাম্প যুক্তরাষ্টের ৪৫তম বিদায়ী প্রেসিডেন্ট। একদা ট্রাম্প বলেছিলেন, ‘আমি খ্রিস্টানদের জন্য যিশুর চাইতে বেশি করেছি’। অথচ তার শাসনকালে মার্কিনিরা নানা ধরনের ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছে। বিশেষভাবে, কালো বর্ণের মানুষের উপর তিনি অবিচার করেছেন। উস্কে দিয়েছিলো, বর্ণবাদ ইস্যুকে। সম্প্রতি ঘটে যাওয়া ‘ক্যাপিটল হিল’ ঘটনার মূল মদদদাতাও ট্রাম্প। হামলাকারীদের পক্ষ হয়ে তিনি বলেন, ‘তারা বের হয়েছে আমেরিকাকে বাঁচাতে’।

তার শাসনকালে সবচেয়ে বেশি ক্ষতির সম্মুখীন ফিলিস্তিন। কেননা, তারা যে স্বাধীন ফিলিস্তিন রাষ্ট্রের স্বপ্ন দেখে ছিলো, তার গতিপথকে রোধ করেছিলেন ট্রাম্প। ‘ডিল অব দ্য সেঞ্চুরি’ ও জেরুজালেমকে ইসরাইলের রাজধানী ঘোষণা মধ্য দিয়ে এবং কথিত আরব-ইসরাইল শান্তি চুক্তির মধ্য দিয়ে যার শেষ হয়েছিলো। একইসঙ্গে, ফিলিস্তিনির উপর ইসরাইলের নিপীড়নকে তিনি সায় দিয়েছিলেন।

বিখ্যাত সাংবাদিক জামাল খাসোগীর হত্যা বিষয়ে তিনি সৌদি শাসকগোষ্ঠীকে ছাড় দিয়েছিলেন এবং তার নির্দেশে খুন হয়েছিলো ইরানের কুর্দস ফোর্সের প্রধান জেনারেল কাশেম সোলাইমানি। যিনি ছিলেন মধ্যপ্রাচ্যে জঙ্গি দমনের অন্যতম হাতিয়ার। ২০১৫ সালে হওয়া পরমাণু চুক্তি থেকে ট্রাম্প নিজেই একতর ফা বের হয়ে যায় এবং ইরানের উপর নতুন অবরোধ দিয়ে চলেছে। যার জন্য করোনাকালে ইরানের জন-জীবনে দুর্ভোগ নেমে এসেছে। একইভাবে, অবোরধের কারণে ইরান অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত। আমেরিকার বৃহত্তম কন্স্যলট কুর্দিস্তানে অবস্থিত এবং তাদের সহায়তায় ইরাকের জন-জীবনকে দিন দিন যুদ্ধবিগ্রহের এদিকে ঠেলে দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। কখনো গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার নাম দিয়ে কখনোবা নিরাপত্তার দোহাই দিয়ে। লেখক : শিক্ষার্থী

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত