প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] পোস্টার ও লিফলেটে সয়লাব জবি ক্যাম্পাস, নষ্ট হচ্ছে সৌন্দর্য

অপূর্ব চৌধুরী: [২] জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল ফটক থেকে শুরু করে ক্যাম্পাসের বিভিন্ন ভবনের দেয়ালে লাগানো হয়েছে অসংখ্য পোস্টার ও লিফলেট।যার ফলে নষ্ট হচ্ছে ক্যাম্পাসের নান্দনিক সৌন্দর্য।

[৩] সরেজমিনে দেখা যায়,বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল ফটক,নতুন ভবনের দেয়াল,ভাষা শহীদ রফিক ভবন,গণিত ভবন ও ক্যাফেটিরিয়ার দেয়ালে লাগানো হয়েছে রাজনৈতিক, নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি সহ নানা ধরনের পোস্টার ও লিফলেট। ঝুলানো হয়েছে বিভিন্ন রাজনৈতিক ব্যানার। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের প্রবেশ পথের দুই পাশে লাগানো হয়েছে ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর পোস্টার।

[৪]এ ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা বিভাগের শিক্ষার্থী মোঃ তৌহিদুল ইসলাম বলেন,বিশ্ববিদ্যালয়ে সবাই রঙিন স্বপ্ন নিয়ে আসে।তাই আমরাও চাই আমাদের ক্যাম্পাস রঙিন থাকুক।অযথা কোন পোস্টার, ব্যানার বা ফেস্টুন দিয়ে যেন ক্যাম্পাসের সৌন্দর্য নষ্ট না করা হয় সেই অভিপ্রায় ব্যাক্ত করছি।

[৫] বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মসজিদ,উন্মুক্ত পাঠাগার,কলাভবন, সামাজিক বিজ্ঞান বিভাগ ভবন, অর্থনীতি ও রাষ্ট্রবিজ্ঞান ভবনের দেয়ালেও ছেয়ে আছে অসংখ্য পোস্টার।পোস্টার ও লিফলেট লাগানোর জন্য শান্ত চত্বর,কেন্দ্রীয় মসজিদের সামনে ও সাইন্স ফ্যাকাল্টিতে মোট তিনটি বোর্ড থাকলেও তা কোন কাজে আসছেনা। বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩নং ও ৪ং গেইটের পাশেও বিভিন্ন রাজনৈতিক পোস্টার লক্ষ্য করা গেছে ।

[৬] বিশ্ববিদ্যালয়ের নিরাপত্তা কর্মী বাবুল মিয়া বলেন, ক্যাম্পাসের দেয়ালে পোস্টার ব্যানার বা লিফলেট লাগানোর ক্ষেত্রে প্রশাসনের নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। আমরা কাউকে লিফলেট বা পোস্টার লাগাতে দেখলে বাধা দেই। তবে অনেকেই রাতের বেলায় পোস্টার লাগায়।

[৭]জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মহিউদ্দিন মাহি বলেন, আমাদের ছোট ক্যাম্পাস পরিষ্কার ও গুছিয়ে রাখার দায়িত্ব সবার। অযথা স্থানে ব্যানার, পোস্টার ক্যাম্পাসের সৌন্দর্য নষ্ট করে৷আমরা ক্যাম্পাসের সৌন্দর্য বর্ধন করার জন্য ভিসি স্যারের সাথে বিভিন্ন পরিকল্পনা করছি।

[৮] জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. মোস্তফা কামাল বলেন, ক্যাম্পাসের দেয়ালে পোস্টার বা লিফলেট লাগানোর অনুমতি কারো নেই। আমরা পরিচ্ছন্নকর্মীদের নির্দেশ দিয়েছি ক্যাম্পাসের দেয়াল থেকে যাবতীয় পোস্টার ও লিফলেট অপসারণ করার জন্য।

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত