প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

প্রথমবারের মতো ‘কান্ট্রি ইন ফোকাস’-এর সম্মান পাচ্ছে বাংলাদেশ

বিনোদন ডেস্ক: ভারতের মর্যাদাব্যঞ্জক আন্তর্জাতিক ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল (আইএফএফআই)। এই ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে এবারেই প্রথমবারের মতো ‘কান্ট্রি ইন ফোকাস’-এর সম্মান পাচ্ছে বাংলাদেশ। চলতি জানুয়ারির ১৬ থেকে ২৪ তারিখে গোয়াতে ‘হাইব্রিড ফরম্যাটে’ এই চলচ্চিত্র উৎসব অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে।

উৎসবের আগে রবিবার (১০ জানুয়ারি) রাতে ভারতের তথ্য মন্ত্রণালয়ের অধীন প্রেস ইনফরমেশন ব্যুরোর এক বিবৃতিতে বাংলাদেশকে এই সম্মান দেওয়ার কথা জানানো হয়। এতে আরও বলা হয়েছে, ‘কান্ট্রি ইন ফোকাস’ হলো এই আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের একটি বিশেষ সেগমেন্ট, যেখানে একটি বিশেষ দেশের ‘সিনেমাটিক উৎকর্ষ ও অবদান’কে সম্মান জানানো হয়।

আইএফএফআইয়ের ৫১তম বর্ষে সেই স্বীকৃতি পাচ্ছে ভারতের বন্ধুপ্রতিম প্রতিবেশী বাংলাদেশ।

ভারতের তথ্য মন্ত্রণালয় আরো জানাচ্ছে, এবারের উৎসবে এই সেগমেন্ট বাংলাদেশের চারটি চলচ্চিত্রকে ‘শোকেস’ করা হবে। প্রদর্শনীতে ঠাঁই পাওয়া এই ছবিগুলো হলো:

১) নির্মাতা তানভীর মোকাম্মেলের ছবি ‘জীবনঢুলী’, যা একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধের সময় একজন ঢুলী ও তার পরিবারের জীবন-সংগ্রামের কাহিনি। ছবিটি বানানো হয়েছিল ২০১৪ সালে।

২) জাহিদুর রহিম অঞ্জনের ছবি ‘মেঘমল্লার’; এটিও মুক্তিযুদ্ধের সময় একটি অতি সাধারণ পরিবারের জীবনের মোড় ঘোরানো অভিজ্ঞতার গল্প। কথাসাহিত্যিক আখতারুজ্জামান ইলিয়াসের ছোট গল্প ‘রেইনকোট’ অবলম্বনে ২০১৪-তে বানানো হয়েছিল এই ছবিটি। এর আগে টরন্টোর ইন্টারন্যাশনাল ফিল্ম ফেস্টিভ্যালেও ছবিটি প্রদর্শিত হয়েছে।

৩) পরিচালক রুবাইয়াত হোসেনের ছবি ‘আন্ডার কনস্ট্রাকশন’। এটি এক আধুনিক মুসলিম নারীর কাহিনি, যিনি নাগরিক বাংলাদেশের বিস্তারের সঙ্গে নিজেকে মানিয়ে নিতে হিমশিম খাচ্ছেন। ভারতীয় অভিনেতা সাহানা গোস্বামী ও রাহুল বোসও বাংলাদেশের এই ছবিতে অভিনয় করেছেন।

৪) তালিকায় চতুর্থ বা শেষ ছবিটি আসলে ১১টি শর্ট ফিল্মের সংকলন, যে সংকলনের নামকরণ করা হয়েছে ‘সিনসিয়ারলি ইয়োর্স, ঢাকা’ বা ‘ইতি, তোমারই ঢাকা’। ১১ জন পরিচালকের সৃষ্টি নিয়েই ২০১৮-তে তৈরি হয়েছিল এই অ্যানথোলজি।

৯৩তম অ্যাকাডেমি অ্যাওয়ার্ডসের (অস্কার) আন্তর্জাতিক বিভাগের জন্য বাংলাদেশ থেকে মনোনয়ন পেয়েছিল এই ছবিটি।

ভারতের ইন্টারন্যাশনাল ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল (আইএফএফআই) সাধারণত প্রতিবছর নভেম্বরের ২০ থেকে ২৮ তারিখে অনুষ্ঠিত হয়ে থাকে, আর জনপ্রিয় পর্যটনকেন্দ্র গোয়ার সৈকতেই এই উৎসবের আয়োজন করা হয়ে থাকে।

কিন্তু গত বছর করোনাভাইরাস মহামারির কারণে এই উৎসব যথাসময়ে অনুষ্ঠিত হতে পারেনি। শেষ পর্যন্ত তা এ বছরের জানুয়ারিতে আয়োজন করার সিদ্ধান্ত হয়েছে। উৎসবে কিছু ছবি অনলাইন, বাকি সব অফলাইনে প্রেক্ষাগৃহে প্রদর্শিত হবে।

বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের সুবর্ণজয়ন্তী বর্ষে আইএফএফআই যে ‘কান্ট্রি ইন ফোকাস’ হিসেবে বাংলাদেশকে বেছে নিয়েছে, সেই সিদ্ধান্তকে দারুণভাবে স্বাগত জানাচ্ছেন ভারতের চলচ্চিত্র বোদ্ধা ও সমালোচকরাও।ডেইলি বাংলাদেশ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত