প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

টিকার জন্য শুধু ভারত নির্ভরতা চরম ঝুঁকিপূর্ণ: আ স ম রব

অনলাইন রিপোর্ট: প্রজাতন্ত্রের নাগরিকদের মূল্যবান জীবন সুরক্ষা দিতে করোনার টিকা সংগ্রহে জরুরি উদ্যোগ গ্রহণ করার জন্য সরকারের প্রতি ৪ দফা দাবি উত্থাপন করেছে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জেএসডি)। শনিবার দলটির সভাপতি আ স ম আবদুর রব ও সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট ছানোয়ার হোসেন তালুকদার গণমাধ্যমে বিবৃতির মাধ্যমে এ দাবি তুলে ধরেন।

বিবৃতিতে বলা হয়-বিশ্বের বহু দেশ যখন খুব দ্রুত হার্ড ইমিউনিটি অর্জনের লক্ষ্যে করোনার টিকা দেয়া শুরু করেছে তখন আমাদের দেশে টিকা নিয়ে চূড়ান্ত অনিশ্চয়তা বিরাজ করছে।

১৭ কোটি জনসংখ্যার বাংলাদেশে ৭০ শতাংশ জনগোষ্ঠী অর্থাৎ প্রায় ১২ কোটি মানুষের ২ ডোজ করে ২৪ কোটি ডোজ টিকার প্রয়োজন হবে। সেক্ষেত্রে ভারতের সিরাম ইনস্টিটিউট থেকে মাত্র ৩ কোটি ডোজ টিকা একেবারেই অপ্রতুল যা পেতেও আবার ছয় মাস লাগবে, কারণ সে টিকা আসবে প্রতিমাসে ৫০ লাখ করে। ফলে বিরাট জনগোষ্ঠী করোনা ঝুঁকিতে থাকবে।

বিকল্প উৎস থেকে টিকা সংগ্রহ করার সরকারি কোন পূর্ব প্রস্তুতি না থাকায় অল্প সময়ে টিকা পাওয়া খুব কঠিন হয়ে পড়বে। করোনা টিকার মত প্রাণরক্ষাকারী অতি গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্নে শুধুমাত্র একটি প্রতিষ্ঠান বা ভারতের উপর নির্ভর করা চরম ঝুঁকিপূর্ণ। বিকল্প উৎস থেকে করোনার প্রয়োজনীয় সংখ্যক টিকা সংগ্রহ করা আমাদের রাষ্ট্রের জন্য অতি আবশ্যক।

সরকার যথাযথভাবে করোনা টিকা সংগ্রহ করতে না পারলে বহু মানুষের আক্রান্ত হওয়া ও মৃত্যুর মাশুল দিতে হবে।

টিকা দেওয়ার কর্মযজ্ঞ খুবই গুরুত্বপূর্ণ। টিকা প্রয়োগের জন্য জনবল নিয়োগ, ট্রেনিংসহ অন্যান্য প্রস্তুতি কর্ম সম্পাদনে সরকারের বাগাড়ম্বর ছাড়া কোনো কাজ পরিলক্ষিত হচ্ছে না। এখন পর্যন্ত সরকার ভ্যাকসিনের ‘প্রায়োরিটি পরিকল্পনা’ প্রকাশ করেনি।

সরকার অতীতেও করোনার শুরু থেকে পরীক্ষা, চিকিৎসা, হাসপাতাল ব্যবস্থাপনাসহ কোনো ক্ষেত্রেই সাফল্য দেখাতে পারেনি। টিকা নিয়েও সরকার সকল ব্যর্থতাকে সফলতা বলে প্রচার করে রাজনৈতিক সুবিধা নেবে…বিনিময়ে অনেক মানুষের অমূল্য প্রাণ হারাতে হবে।

এ লক্ষ্যে দলটির ৪ দফা দাবি

(১) ভারতের সিরাম ইনস্টিটিউটের বাইরে অন্য কোন উৎপাদনকারী দেশ থেকে দ্রুত করোনা টিকা আমদানির উদ্যোগ গ্রহণ করা।

(২) টিকা প্রয়োগের লক্ষ্যে জনবল নিয়োগ, ট্রেনিং, সংরক্ষণ, সরবরাহ, বিতরণসহ সার্বিক ব্যবস্থাপনা বাস্তবায়ন করা।

(৩) টিকা দেওয়ার ‘প্রায়োরিটি’ পরিকল্পনা চূড়ান্ত করে জনসমক্ষে প্রচার করা এবং

(৪) টিকা উৎপাদনে দেশীয় প্রতিষ্ঠানকে সরকারের পূর্ণ সমর্থন প্রদান করা।

আমরা আশা করছি সরকার করোনা মহামারী থেকে মানুষের জীবন সুরক্ষায় দ্রুত প্রয়োজনীয় উদ্যোগ গ্রহণ করবে।

সূত্র: বিডি-প্রতিদিন

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত