প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ফারজানা প্রিয়দর্শিনী আফরিন : মাস্টার মাইন্ড স্কুল ছাত্রী ধর্ষণ : কয়েকটা অপ্রিয় সত্য কথা না বললেই নয়!

ফারজানা প্রিয়দর্শিনী আফরিন : কয়েকটা অপ্রিয় সত্য কথা না বললেই নয়। ছেলেটি নিহতের বয়ফ্রেন্ড হলেও, স্বেচ্ছায় শারীরিক সম্পর্ক করতে গেলেও যদি মেয়েটির বয়স সার্টিফিকেট অনুযায়ী ১৬ বছরের কম হয়, সেটি আইনত ধর্ষণ। (নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন-২০০০/সংশোধনী ২০০৩ এর ধারা-৯) [১] এই আইনের ১৪(১) ধারা অনুযায়ী ধর্ষণের শিকার নারী-শিশুর ছবি প্রকাশ আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ। এখন ভিকটিম মারা গেলে তার ছবি প্রকাশে বাধা নেই এমন ‘রেওয়াজ’ আপনাদের নিজেদের তৈরি করা, আইনে কোথাও বলা নেই যে মারা যাবার পর ভিকটিমের ছবি প্রকাশ করা যাবে। বরং আইনের ‘ব্যাখ্যা’ প্রয়োগে ভিকটিম মারা যাবার পর পরিচয় প্রকাশ করলে তার পরিবার-স্বজনের সম্মানহানি-হেনস্থার পরিস্থিতি তৈরি হলে একই আইন প্রযোজ্য হবে।

[২] এবং সর্বশেষ বলছি যারা লিখছেন ‘ধর্ষকের ছবি বেশি বেশি করে ছড়িয়ে দিন’ এবং বাকি তিন সহযোগীসহ অভিযুক্ত ছেলেদের ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল করছেন, তাদের একজনও যদি আইনের চোখে নাবালক হয়, তবে আপনি আইনের চোখে শাস্তিযোগ্য অপরাধ করছেন। আর প্রধান অভিযুক্তসহ সকলে হলে তো কথাই নেই। শিশু আইন ২০১৩(৮১) অনুযায়ী বিচারাধীন কোনো মামলা বা বিচার কার্যক্রম সম্পর্কে এটা করা যায় না। এবং এই আইন অনুযায়ী শিশু গণ্য হবে অনধিক ১৮ বছর বয়স। [৩] পোস্ট মর্টেম রিপোর্ট আসেনি। সুতরাং ‘গ্যাং রেইপ’ নাকি বন্ধুকে সাহায্য করতে গিয়ে বাকিরা ফেঁসেছে এগুলো নিশ্চিত হবার আগ পর্যন্ত এই অপেক্ষার সময়টুকুতে লজিক্যালি ভাবুন বসে বসে যদি হাতে প্রচুর সময় থাকে। রিপোর্ট আসতে বেশি সময় লাগার কথা না। ফেসবুক থেকে

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত