প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] কন্যা হলেই উপহার দেন এই পুলিশ কর্মকর্তা

আরমান কবীর : [২] কন্যাসন্তান হলেই ওই পরিবারকে উপহার দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন টাঙ্গাইলের কাগমারী পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মোশারফ হোসেন। এ প্রসঙ্গে ফেসবুকে দিয়েছেন একটি পোস্ট। যা ভাইরাল হয়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও।

[৩] মঙ্গলবার (৫ জানুয়ারি) রাতে পুলিশ কর্মকর্তা মোশারফ হোসেন তার ফেসবুক আইডিতে লিখেন, কন্যাসন্তান সমাজের বোঝা নয়, আশীর্বাদ। কন্যাসন্তান আল্লাহর শ্রেষ্ঠ পুরস্কার। কন্যাসন্তান মা-বাবার জান্নাতের সুসংবাদ নিয়ে দুনিয়ায় আগমন করে।

[৪] তার এ ফেসবুক পোস্টের পর বুধবার (৬ জানুয়ারি) প্রথম দিনেই চার কন্যাসন্তানের বাবা-মা ওই পুলিশ কর্মকর্তার কাছে গিয়ে তাদের উপহার বুঝে নেন।

[৫] এ প্রসঙ্গে গণমাধ্যমকে কাগমারী পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মোশারফ হোসেন বলেন, চাকরি সূত্রে আমি চরাঞ্চল ও গ্রাম পর্যায়ে ঘুরেছি। ওইসব এলাকায় কন্যাসন্তান জন্ম হলে মায়েদের নানা বিড়ম্বনায় পড়তে হয়। বিষয়টি খুবই খারাপ লেগেছে। সেই খারাপ লাগা থেকে আমি এ উদ্যোগ নিয়েছি। আমি ফেসবুকে বিষয়টি নিয়ে স্ট্যাটাসে ঘোষণা দেই। অনেকেই ফোন দিচ্ছেন। সচেতন মহল সাধুবাদও জানাচ্ছেন। প্রথম দিনই চার কন্যাসন্তানের বাবা-মাকে সামান্য উপহার দিয়েছি। এ উপহার অব্যাহত থাকবে।

[৬] পুলিশ পরিদর্শক মো. মোশারফ হোসেন জানান, তিনি চাকুরি সূত্রে বিভিন্ন চরাঞ্চল ও গ্রাম পর্যায়ে ঘুরেছেন। ওইসব এলাকায় কন্যা সন্তান জন্ম হলে মায়েদের নানা বিড়ম্বনায় পড়তে দেখেছেন। বিষয়টি তার কাছে খুবই খারাপ লেগেছে। সেই খারাপ লাগা থেকে তিনি মূলত: চরাঞ্চলের চিরায়ত ধ্যান-ধারণা পরিবর্তনে শরীক হতে কাগমারি পুলিশ ফাঁড়ি এলাকায় নবজাতক কন্যা সন্তানের সকল মা’দের পুরস্কৃত করার উদ্যোগ নিয়েছেন। সে লক্ষেই ফেসবুকে বিষয়টি নিয়ে স্ট্যাটাস দিয়ে ঘোষণা দেন। তিনি জানান, মোবাইল ফোনে অনেকেই প্রশংসা করছেন। সচেতন মহল সাধুবাদও জানাচ্ছেন। প্রথম দিনে চার কন্যা সন্তানের বাবা-মাকে সামান্য উপহার দিতে পেরে তিনি খুবই আনন্দ পেয়েছেন। এ উপহার সামগ্রী প্রদান অব্যাহত থাকবে। সম্পাদনা: সাদেক আলী

 

 

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত