প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] নতুন মহামারি ভাইরাস ‘ডিজিজ এক্স’ আসার আশঙ্কা বিজ্ঞানীর

দেবদুলাল মুন্না: [২] এমনই আশঙ্কার কথা বুধবার সিএনএনকে জানিয়েছেন চার দশক আগে ইবোলা ভাইরাসের আবিষ্কারকর্তা বিজ্ঞানী প্রফেসর জ্য জ্যাক মুয়েবে তামফুন।

[৩] প্রফেসর জ্য জ্যাক মুয়েবে তামফুন বর্তমানে আমেরিকার ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশন এবং বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সহায়তায় কিনশাসা শহরে ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব বায়োমেডিক্যাল রিসার্চ সংস্থার পরিচালক।

[৪] তামফুন জানিয়েছেন, আফ্রিকার রেইন ফরেস্টে একটি ভাইরাস তৈরি হচ্ছে। ওই ভাইরাস ছড়াতে পারে পশু-পাখি থেকে মানুষের মধ্যে এবং তা মহামারির আকার নিতে পারে। এই ভাইরাসকে বলা হচ্ছে ‘ডিজিজ এক্স’।

[৫] মারাত্মক এই ডিজিজ এক্স কি করোনাভাইরাসকে থেকেও বেশি প্রাণঘাতী হতে পারে?এমন প্রশ্নের জবাবে তামফুন বলেন, একদমই তাই। আমি সে রকমটাই মনে করি।

[৬] তিনি জানান, “আমরা এমন এক পৃথিবীতে এখন বাস করছি, যেখানে নিত্যনতুন জীবাণু দেখা দিতে পারে। আর সেটাই মানব সভ্যতার পক্ষে আতঙ্কের। ”

[৭] বিশেষজ্ঞদের দাবি, অজ্ঞাতপরিচয় এই রোগ কোভিড-১৯ এর মতোই দ্রুত ছড়িয়ে যেতে পারে। কিন্তু তার মারণ ক্ষমতা প্রায় ইবোলার মতো অর্থাৎ ৫০ থেকে ৯০ শতাংশ।

[৮] বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জানিয়েছে, অপ্রত্যাশিত ডিজিজ এক্স এই মুহূর্তে ধারণাভিত্তিক হলেও ব্যাপক সংক্রমণ ঘটলে বিশ্বজুড়ে ভয়াবহ অতিমারী দেখা দিতে পারে।

[৯] ডিজিজ এক্স বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) প্রদত্ত স্থানদখলকারী নাম। ২০১৮ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে ডব্লিউএইচও বৈশ্বিক মহামারী ঘটাতে সক্ষম এমন অজানা প্যাথোজেন কর্তৃক সৃষ্ট রোগকে প্রতিনিধিত্ব করতে গুরুত্বপূর্ণ ব্যাধির নীল নকশা নামক সংক্ষিপ্ত তালিকায় এই নামটি ব্যবহার করে।

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত