প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] বাণিজ্য ও বিনিয়োগ সম্প্রসারণে সহযোগিতা করবে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

কূটনৈতিক প্রতিবেদক: [২] মঙ্গলবার ‘ডিসিসিআই বিজনেস কনক্লেভ-২০২১’ উদ্বোধনের পর পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেন, ইকোনোমিক ডিপ্লোমেসি নীতি নিয়েছে সরকার।

[৩] দেশের ব্যবসা-বাণিজ্য ও বিনিয়োগে সম্প্রসারণে পররাষ্ট্র মন্ত্রালয়ে একটি নতুন শাখা স্থাপন করা হয়েছে।

[৪] সরকার আগামী কয়েক বছরের মধ্যে বৈশ্বিক বাজারে দেশীয় উদ্যোক্তাদের অভিগম্যতা বৃদ্ধি, দেশীয় পণ্যের রপ্তানির বাজার সম্প্রসারণ, বৈদেশিক বিনিয়োগ আকর্ষণ এবং তথ্য-প্রযুক্তির আদান-প্রদান বাড়ানোর বিষয়ে প্রাধান্য দেবে।

[৫] তিনি বলেন, মহামারির মধ্যেও আমাদের পণ্য উৎপাদন প্রক্রিয়া সচল ছিল এবং বর্তমান সরকার দেশের মানুষের জীবন ও জীবিকার মধ্যে সমন্বয়ের সর্বাত্মক চেষ্টা অব্যাহত রেখেছে।

[৬] উদ্যোক্তাদের অক্লান্ত পরিশ্রম এবং সরকার গৃহীত পণোদনা প্যাকেজের যথাযথ বাস্তবায়ানের মাধ্যমে দেশের অর্থনীতি কাঙ্খিত মাত্রায় সচল আছে।

[৭] আগামী মাসের মধ্যে এলডিসি থেকে বাংলাদেশের উত্তরণের সম্ভাবনা রয়েছে এবং সার্ক ও দক্ষিণ এশিয়া অঞ্চলে বিনিয়োগের জন্য বাংলাদেশ আকর্ষণীয় গন্তব্যস্থল বলে মন্তব্য করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

[৮] বিশেষ অতিথি’র বক্তব্যে বিডা’র নির্বাহী চেয়ারম্যান মো. সিরাজুল ইসলাম বলেন, ২০২১ সালে স্বল্পন্নোত দেশ হতে উত্তরণের মানদণ্ড বিচারের যে প্রক্রিয়া রয়েছে, তাতে বাংলাদেশ সঠিক পথেই আছে।

[৯] ঢাকা চেম্বারের সভাপতি রিজওয়ান রাহমান বলেন, অর্থনীতিতে বিদ্যমান পুনরুদ্ধার কার্যক্রমের সাথে সঙ্গতি রেখে বাংলাদেশও উৎপাদন ও সেবা প্রদানের প্রক্রিয়া অব্যাহত রেখেছে।

[১০] ‘ডিসিসিআই বিজনেস কনক্লেভ ২০২১’ এ ৩৪ জন দেশি-বিদেশি রাষ্ট্রদূত ও হাইকমিশনার এবং ১০টি দেশের প্রায় ২০০ জন উদ্যোক্তা ভার্চ্যুয়ালী বিভিন্ন সেশনে যুক্ত হন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত