প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

গোলাম সারোয়ার: রাষ্ট্র কাউকে ঘৃণা ছড়াতে দিতে পারেন না

গোলাম সারোয়ার: শফী হুজুর মারা গেছেন সময়ে সময়ে আইসিইউ ব্যবহার করে করে। ডাক্তারদের চিকিৎসা নিয়ে নিয়ে। কাসেমী হুজুরও ডাক্তারদের কৃপার উপর মারা গেছেন। মারা যাওয়ার আগে তারা কেউ মরতে চাননি। বাঁচার প্রাণপণ চেষ্টা করেছেন। মারা যাওয়ার পর এখন তাদের কোতোয়ালরা বলছেন, তাদের বেহেশতে নিয়ে নেওয়ার জন্য রিসিভ করতে নাকি আগে যাওয়া বেহেশতিরা এগিয়ে এসে নিয়ে গেছেন। বেহেশতে যদি এতোটাই নিশ্চিত হয়, তাহলে মরতে এতো ভয় কেন?

এক হুমকির সঙ্গে আরেকজন মালোয়শিয়া গিয়ে গর্তে বসে আছেন কেন? মরার এতো ভয়? এক মামলার সঙ্গে উল্টো ওয়াজ শুরু করলেন কেন? আসল কথায় আসি। মামুনুল সাহেবরা ট্যাক্স দেন বলে আমরা জানি না। তারা সারাদেশে যেসব প্রোডাক্ট সাপ্লাই দেন, তারা নিজেরাই চলেন মানুষের দয়ার উপর। এই অবস্থায় জাতির সবচেয়ে মেধাবী সন্তান ডাক্তারদের তুচ্ছতাচ্ছিল্য করার কারণ কী? এসব বেয়াদবির জবাবদিহিতা দরকার। প্রতিবাদ দরকার। জাতির সবচেয়ে মূর্খরা সবচেয়ে মেধাবীদের এভাবে অপমাণ করে যেতে পারে না। আর এগুলো কোনো ওয়াজ নসিহতও নয়। এগুলো স্রেফ ঘৃণা ছড়ানো। রাষ্ট্র ঘৃণা ছড়াতে দিতে পারেন না। ফেসবুক থেকে

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত