প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

তরুলতা: সব্যসাচী লেখক হিসেবে খ্যাত সৈয়দ শামসুল হকের জন্মদিন আজ, ৬২ বছরের দীর্ঘ লেখক জীবনে তিনি সাহিত্যকর্ম ছাড়াও চলচ্চিত্রের চিত্রনাট্য লেখার কাজও করেছেন

তরুলতা: সব্যসাচী লেখক হিসেবে খ্যাত সৈয়দ শামসুল হক বাংলাদেশের প্রখ্যাত একজন সাহিত্যিক, যিনি একাধারে কবিতা, ছোটগল্প, নাটক, উপন্যাস, কাব্যনাট্য, প্রবন্ধসহ সাহিত্যের বিভিন্ন শাখাতেই স্বচ্ছন্দে বিচরণ করেছেন। ৬২ বছরের দীর্ঘ লেখক-জীবনে তিনি সাহিত্যকর্ম ছাড়াও চলচ্চিত্রের চিত্রনাট্য লেখার কাজও করেছেন। খ্যাতিমান এই লেখক ১৯৩৫ সালের ২৭ ডিসেম্বর কুড়িগ্রাম জেলায় জন্মগ্রহণ করেন। আট ভাই-বোনের মাঝে তিনি ছিলেন সবচেয়ে বড়। কৃতিত্বের সাথে তিনি ম্যাট্রিক পাস করলেও পরের বছরই বম্বে পালিয়ে গিয়ে সেখানে একটি সিনেমা প্রোডাকশন হাউজে কাজে যোগদান করেন। এরপর ফিরে এসে কলেজের পাট চুকিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগে ভর্তি হলেও স্নাতক শেষ করেননি।

সৈয়দ শামসুল হকের বই দর্শক ও সমালোচক উভয় সমাজেই ব্যাপকভাবে সমাদৃত হয়েছে। সৈয়দ শামসুল হকের বই সমূহের মধ্যে ‘অনুপম দিন’, ‘সীমানা ছাড়িয়ে’, ‘খেলারাম খেলে যা’, ‘এক মহিলার ছবি’ ইত্যাদি উপন্যাস; ‘নারীগণ’, ‘ঈর্ষা’, ‘পায়ের আওয়াজ পাওয়া যায়’ ইত্যাদি কাব্যনাট্য এবং ‘পরাণের গহীন ভিতর’, ‘প্রতিধ্বনিগণ’ ইত্যাদি কাব্যগ্রন্থ রয়েছে। এছাড়াও সৈয়দ শামসুল হকের বই সমগ্র এর মধ্যে রয়েছে বিভিন্ন অনুবাদগ্রন্থ, ছোটগল্প, শিশুতোষগ্রন্থ ইত্যাদি।

সাহিত্যে অসাধারণ অবদানের জন্য তিনি দীর্ঘ সাহিত্যজীবনে ভূষিত হয়েছেন বিভিন্ন পুরস্কারে, যেগুলোর মধ্যে ‘বাংলা একাডেমি পুরস্কার’, ‘আদমজী সাহিত্য পুরস্কার’ এবং বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক প্রদত্ত ‘একুশে পদক’ উল্লেখযোগ্য। এছাড়াও তিনি শ্রেষ্ঠ চিত্রনাট্যকার হিসেবে দুবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারও লাভ করেন। কীর্তিমান এই সাহিত্যিক ২০১৬ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর ঢাকায় মৃত্যুবরণ করেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত