প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] চট্টগ্রামে এক ভুয়া ডিবি পুলিশ গ্রেপ্তার

রাজু চৌধুরী : [২] গরীব রিকশাওয়ালাদের টার্গেট করে তাদের টাকা ও মোবাইল হাতিয়ে নেয় এমন এক ভুয়া ডিবি পুলিশকে আটক করেছে কোতোয়ালী পুলিশের একটি টহল টিম।

[৩] বুধবার (২৩ ডিসেম্বর) চট্টগ্রাম কোতোয়ালী থানা পুলিশ জানায়, মঙ্গলবার ঘটেছে এ ঘটনা, রাত সাড়ে ৯টায় জনতার হাতে ধরা পড়ে, নন্দনকানন এলাকার সিটি ব্যাংকের পাশ থেকে ছদ্মবেশী প্রতারক গিয়াস উদ্দিনকে গ্রেপ্তার করা হয়।

[৪] পুলিশ জানায়, রফিক নামের এক রিকশাচালকের কাছে নিজেকে গোয়েন্দা পুলিশের কর্মকর্তা পরিচয় দিয়ে বিনা ভাড়ায় দুই দিন নগরীর বিভিন্ন স্থানে যাতায়াত করেন গিয়াস উদ্দিন। একসময় তার মুঠোফোনটি নিয়ে কথা বলার ছলে তা ছিনতাই করে পালিয়ে যান তিনি।

[৫] পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, গ্রেফতারকৃত মো. ইমরান প্রকাশ গিয়াস উদ্দিন (৩২) চট্টগ্রাম জেলার রাঙ্গুনিয়া থানার লিচু বাগান এলাকার নাছির খানের ছেলে। বর্তমানে তিনি হালিশহরের এ’ব্লকের বাসিন্দা এবং ক্লিফটন গ্রুপের সদরঘাট শাখায় কর্মরত আছেন।

[৬] কোতোয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ মহসীন বলেন, আটকৃত গিয়াস একজন নিষ্ঠুর, নির্মম এক প্রতারক ধরেছি। সে শুধু রিক্সাওয়ালাকে ঠকায় যারা সারাদিন কঠোর পরিশ্রম করে অল্প আয় করেন। রাতে তাদের টার্গেট করে। কারণ, রাতে তাদের কাছে টাকা থাকে! নিজেকে পুলিশ পরিচয় দেয়। কারণ, পুলিশ পরিচয় দিলে রিক্সাওয়ালা ভয়ে কিছু বলবে না! আবার রিক্সাওয়ালাও অভিযোগ করলে পুলিশ শুনবে না! তাই রিকশাওয়ালার সারাদিনের আয় সে ছিনিয়ে নিতো। কৌশলে মোবাইলও নিয়ে নিতো।

[৭] প্রতিদিনই সে এই কাজ করত।রিকশাচালক রফিকুল ইসলাম এর এজাহারে সূত্রে জানা যায়, ৩ ডিসেম্বর রাত সাড়ে ৯ টায় তিন পুলের মাথায় ভাড়ার জন্য অপেক্ষা করার সময় গিয়াস উদ্দিন সিনেমা প্যালেস হয়ে এনায়েত বাজার ডায়াবেটিস হাসপাতালের সামনে পর্যন্ত রিকশা ভাড়া নেন। পরে রিকশা থেকে নামার পর নিজেকে একজন ডিবি পুলিশ বলে পরিচয় দেন তিনি। এসময় রফিকের মুঠোফোন নম্বর সংগ্রহ করেন।

[৮] আবার ১০ ডিসেম্বর বিকালে কল দিলে সন্ধ্যা ৭ টায় ২নম্বর গেইট মোড় থেকে তার রিকশা নিয়ে প্রবর্তক মোড়, চকবাজার এলাকা, সিরাজউদ্দৌল্লা রোড, আন্দরকিল্লা, চেরাগী পাহাড়, কাজীর দেউরী, নিউমার্কেট মোড়, বটতলী ষ্টেশন, নুপুর মার্কেট, কাজীর দেউরী মোড় ভ্রমণ করেন গিয়াস। রাত ১০টার দিকে জুবিলী রোডের আমতল মোড়ে পৌছালে গাড়ি থামাতে বলেন তিনি।

[৯] এসময় গিয়াস তার মুঠোফোনে ব্যালেন্স নেই জানিয়ে রফিকের মুঠোফোনটি ধার চান। এরপর বেশ কিছুক্ষণ কথা বলতে বলতেই কৌশলে সেখান থেকে পালিয়ে যান তিনি। এ ঘটনার ১২দিন পর গতকাল মঙ্গলবার রাতে নন্দনকানন এলাকার সিটি ব্যাংকের পাশে হঠাৎ তাকে দেখতে পেয়ে স্থানীয় লোকজনের সাহায্যে পুলিশের কাছে তাকে সোপর্দ করেন রফিক। ওসি মহসীন আরও জানান, মোহাম্মদ ইমরান ওরফে গিয়াস উদ্দিন নিজেকে গোয়েন্দা পুলিশ পরিচয় দেয়ায় তার বিরুদ্ধে থানায় ১৭০ ধারায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত