প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] ‘আরব বসন্তে’ নির্বাসিতদের আশ্রয়স্থল হয়ে উঠেছে তুরস্ক

আব্দুল্লাহ যুবায়ের: [২] আরব বিশ্বের বিভিন্ন দেশের কর্মী, সাংবাদিক এবং রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বসহ তুরস্কে এখন প্রায় ৪ কোটি শরণার্থী বসবাস করছেন। এর মধ্যে বেশিরভাগ সিরিয়ার অধিবাসী। আল জাজিরা

[৩] আরব বসন্তের পর আরব বিশে^র বিভিন্ন দেশ থেকে তুরস্কে আশ্রয় নেওয়া শরণার্থীদের ব্যবসা, অর্থ আয় ও গণ মাধ্যমে কাজ করার সুযোগসহ সব রকমের সুযোগ সুবিধা দিচ্ছে সরকার। ফলাফলে, যুদ্ধবিধ্বস্ত আরব দেশগুলোর নির্বাসিত নেতা ও শরণার্থীদের জন্য স্বর্গভূমি হয়ে উঠেছে তুরস্ক।

[৪] ইস্তাম্বুলের আরব মিডিয়া এ্যাসোসিয়েশনে ৮০০ এর বেশি সদস্য রয়েছে। লিবিয়া, ইয়েমেন এবং সিরিয়ার মতো দেশের নির্বাসিতরা এ এ্যাসোসিয়েশনের সদস্য। তারা তুরস্কে স্কুল, দাতব্য সংস্থা, এনজিও ও মিডিয়াসহ নানান রকম প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলেছে।

[৫] তুরস্কে নির্বাসিত মিশরীয় সাংবাদিক এবং টিভি উপস্থাপক ইসলাম আকেল বলেন, আমি এখন ইস্তাম্বুলে মুসলিম ব্রাদারহুড সমর্থিত ওয়াটান টিভিতে উপস্থাপক হিসাবে গর্বের সঙ্গে কাজ করছি। তুরস্কে প্রবাসীদের স্বাগত জানিয়ে তিনি বলেন, তুরস্ক প্রবাসীদের জন্য নিরাপদ ভূমি।

[৬] তুরস্ক আরব বসন্তকে ব্যাপকভাবে সমর্থন করেছিল। বিশেষভাবে, আরব বসন্তের সময় তারা মিশরের মুসলিম ব্রাদারহুড-জোট সরকারের সাবেক প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ মুরসিকে সমর্থন দিয়েছিলো এবং কট্টোর বিরোধিতা করেছিলো সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশার আল-আসাদের। সম্পাদনা: আসিফুজ্জামান পৃথিল

 

 

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত