প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] ওয়ান টাইম পাসওয়ার্ড ছাড়া কোনো নতুন টিভ্যাস সেবা দেওয়া যাবে না: বিটিআরসি

সমীরণ রায়: [২] মঙ্গলবার টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসির চেয়ারম্যান শ্যাম সুন্দর সিকদারের সঙ্গে মোবাইলফোন অপারেটর রবি ও বাংলালিংক প্রতিনিধিদের বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেয় বিটিআরসি। এছাড়াও লাইসেন্স প্রাপ্ত যেকোনো প্রতিষ্ঠান চাইলেই টিভ্যাস সেবা নিতে অপারেটরগুলোকে বাধ্য করতে পারবে না। প্রতিষ্ঠান ও প্রতিষ্ঠানটির সেবা কমপ্লায়েন্স কিনা তা যাচাই করতে পারবে অপারেটর দুটি। এছাড়া টেলিকম ভ্যালু অ্যাডেড সার্ভিস (টিভ্যাস) সেবার ওপর মনিটরিং ক্ষমতা আরও বাড়াতে পারবে অপারেটরগুলো।

[৩] বৈঠকে অংশ নেওয়া একটি অপারেটর কোম্পানির একজন দায়িত্বশীল কর্মকর্তা জানান, মোবাইল অপারেটররা সরাসরি কিছু টিভ্যাস সেবা দেয় গ্রাহকদের। এছাড়া থার্ড পার্টির মাধ্যমেও টিভ্যাস সেবা দেওয়া হয়। যেসব থার্ড পার্টি ওয়ান টাইম পাসওয়ার্ড (ওটিপি) না পাঠিয়ে টিভ্যাস চালু করেছে, তাদের সেবা বন্ধ করে দিতে বলেছে। অপরদিকে বিটিআরসি থেকে লাইসেন্স নিয়ে এলেই মোবাইল অপারেটররা টিভ্যাস সেবা দিতে বাধ্য থাকতো, সেই বিধিবিধানও থাকছে না। সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান ও প্রতিষ্ঠানের সেবা কমপ্লায়েন্স কিনা তা যাচাই করতে পারবে অপারেটরগুলো।

[৪]রবির চিফ করপোরেট অ্যান্ড রেগুলেটরি অফিসার সাহেদ আলম বলেন, টিভ্যাস সেবা চালু রাখার বিষয়ে বিটিআরসির নির্দেশনা বাস্তবায়ন করছি। ওটিপির নির্দেশনা বাস্তবায়নের পাশাপাশি যেসব টিভ্যাস সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান পুরোপুরি কমপ্লায়েন্স প্রতিপালন করবে না, তাদের নেটওয়ার্কে একসেস প্রদানে অপারেটরদের কোনো বাধ্যবাধকতা নেই। বিটিআরসির এমন নির্দেশনা প্রতিপালন করবো।

[৫] দেশে নিবন্ধিত টিভ্যাস কোম্পানির সংখ্যা ১৮২টি। এরমধ্যে মোবাইল গ্রাহকের অজান্তে টিভ্যাস সেবা চালু করে টাকা কেটে নেওয়ার অভিযোগ ছিল রবি ও বাংলালিংক অপারেটরের বিরুদ্ধে। এরই প্রেক্ষিতে গত ১২ নভেম্বর অপারেটর দুটির কাছে সাত দিনের মধ্যে ব্যাখ্যা চেয়ে নোটিশ পাঠায় বিটিআরসি। তখন থেকেই সেবা বন্ধ রাখার কথা বলেছিল বিটিআরসি।

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত