প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] বিনিয়োগ বাড়াতে ও রোহিঙ্গা ইস্যুতে সহযোগিতা জোরদারে ঢাকায় তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী

কূটনৈতিক প্রতিবেদক : [২] মঙ্গলবার সন্ধ্যার কিছু পরে দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত চাভুসওগ্লু হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বিন্দরে অবতারন করলে তাকে স্বাগত জানান পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন।

[৩] সোমবার দিনের শুরুতেই ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্মৃতি জাদুঘর পরিদর্শন করবেন তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

[৪] পরে ঢাকায় তুরস্কের নবনির্মিত দূতাবাস ভবন উদ্বোধন করবেন মেভলুত চাভুসওগ্লু ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন।

[৫] এদিন দুপুরে উভয় পররাষ্ট্রমন্ত্রী দ্বি-পাক্ষিক বৈঠকে মিলিত হবেন এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করবেন।

[৬] তার এ সফরে অভিবাসন ও ব্যবসা-বাণিজ্য ইস্যুতে সমাঝোতা স্মারক স্বাক্ষর হতে পারে ।

[৭] পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেছেন, দেশটি বাণিজ্য সম্পর্ক বৃদ্ধি ও বিদ্যমান শুল্কবাধা এড়িয়ে নতুন পণ্য, বস্ত্র, ওষুধ ও অন্যান্য খাতে বিনিয়োগে আগ্রহী।

[৮] বৈঠকে আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতে গাম্বিয়ার করা মামলা পরিচালনায় দেশটির সহযোগিতা ও রোহিঙ্গা ইস্যুতে আরও কিভাবে দেশটি কাজ করতে পারে এ নিয়ে বিস্তর আলোচনা হবে।

[৯] ঢাকা-আঙ্কারা’র বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ককে আরো গতিশীল করতে উভয় দেশের জনগণের মধ্য সম্পর্ক তৈরি ও বাংলাদেশের মেডিকেল শিক্ষার্থীদের দেশটিতে শিক্ষা গ্রহণের বিষয়টি স্থান পাবে বলে জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

[১০] বাংলাদেশে একটি আধুনিক হাসপাতাল নির্মাণে দেশটির প্রস্তাবনা রয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, আগামী জানুয়ারীতে ঢাকায় অনুষ্ঠিতব্য ডি-৮ শীর্ষ সম্মেলনে তুরষ্কের প্রেসিডেন্ট ও বর্তমান চেয়ার এরদোগান যোগদানের বিষয়ে সম্মতি দিয়েছেন।

[১১] ডি-৮ শীর্ষ সম্মেলন করোনার আগে পরে বেশ কয়েক বার পিছিয়েছে, এবারও হয়ত পিছিয়ে যাবে। তবে করেনা পরিস্থিতি আরও বাড়লে ভার্চ্যুয়ালি করার সম্ভাবনা রয়েছে।

[১২] ঢাকায় তুরস্কের রাষ্ট্রদূত মোস্তফা ওসমান তুরান সম্প্রতি জানিয়েছেন, বাংলাদেশে বিনিয়োগ বৃদ্ধি ও পণ্যে বৈচিত্র আনার মাধ্যমে দ্বিপক্ষীয় বাণিজ্যে উল্লেখযোগ্য উন্নতি আনতে চায় তুরস্ক।

[১৩] তিনি বলেন, আমরা এমন এক বাংলাদেশকে দেখি যার রয়েছে খুব উজ্জ্বল এক ভবিষ্যত। এ দেশের অর্থনীতি আমাদের দেশের মতো দ্রুত বাড়ছে।

[১৪] দুই দেশের মধ্যে বর্তমানে দ্বিপক্ষীয় বাণিজ্যের পরিমাণ ১০০ কোটি ডলার এবং এ সংখ্যা বাড়াতে উভয় দেশ সম্মত।

[১৫] চলতি বছরের প্রথম ১০ মাসে দুই দেশের মধ্যে বাণিজ্যের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৭৫.৪ কোটি ডলার।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত