প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

করোনায় মৃত্যু হার ফ্লুর চেয়ে তিনগুণ বেশি

ল্যানসেটে প্রকাশিত গবেষণা প্রতিবেদন

রয়টার্স: কোভিড-১৯ নিয়ে সম্প্রতি প্রকাশিত একটি গবেষণা প্রতিবেদনে দাবি করা হয়েছে, ফ্লুর চেয়ে করোনায় আক্রান্ত রোগীর মৃত্যুর হার তিনগুণ বেশি। এদিকে আরেকটি গবেষণায় দেখা গেছে, কৃষ্ণাঙ্গ রোগীদের অক্সিজেন পরিমাপের ক্ষেত্রে পালস্ অক্সিমিটার তুলনামূলকভাবে কম নির্ভরযোগ্য।

ফ্লু ও করোনার তুলনামূলক মৃত্যুহার নিয়ে প্রতিবেদনটি প্রকাশ করা হয়েছে চিকিত্সাবিষয়ক সাময়িকী ‘দ্য ল্যানসেট রেসপিরেটরি মেডিসিনে’। গবেষণায় ফ্রান্সের তথ্য-উপাত্ত ব্যবহার করা হয়েছে। গবেষকরা চলতি বছরের মার্চ ও এপ্রিলে হাসপাতালে ভর্তি হওয়া ৮৯ হাজার ৫৩০ করোনা রোগীর সঙ্গে ২০১৮ সালের ডিসেম্বর থেকে ২০১৯ সালের ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত মৌসুমি ইনফ্লুয়েঞ্জায় আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হওয়া রোগীদের তুলনা করে তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহ করেছেন। গবেষণাকালীন কোভিড রোগীদের ১৬.৯ শতাংশ মারা যান। ঐ সময় ইউরোপ জুড়ে করোনার প্রথম ঢেউ চলছিল। তখন করোনার জটিল রোগীদের চিকিত্সা দেওয়ার ক্ষেত্রে নানা সীমাবদ্ধতা দেখা দিয়েছিল।

গবেষণায় যৌথভাবে নেতৃত্ব দেন ফ্রান্সের ডিজন শহরের ইউনিভার্সিটি হাসপাতালের অধ্যাপক ক্যাথেরিন কুয়ান্টিন ও দেশটির জাতীয় স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউট ‘আইএনএসইআরএম’। ক্যাথেরিন কুয়ান্টিন বলেন, করোনা ও ইনফ্লুয়েঞ্জায় মৃত্যুর হারের এই পার্থক্য বিশেষভাবে লক্ষণীয়। ইনফ্লুয়েঞ্জায় ২০১৮-২০১৯ সালের যে সময়ের মৃত্যুর হারকে গবেষণায় বিবেচনায় নেওয়া হয়েছে, ফ্রান্সে সেটি ছিল বিগত পাঁচ বছরের মধ্যে সবচেয়ে প্রাণঘাতী ফ্লুর মৌসুম। গবেষণা প্রতিবেদনের রচয়িতারা বলেন, ঐ সময়ে ইনফ্লুয়েঞ্জার রোগীর দ্বিগুণ করোনা রোগী হাসপাতালে ভর্তি হন। তবে তারা এটাও বলেন, এর আগে টিকা নেওয়ার কারণে ইনফ্লুয়েঞ্জায় হাসপাতালে রোগী ভর্তির হার এ রকম কম হয়ে থাকতে পারে। এদিকে ‘দ্য নিউ ইংল্যান্ড জার্নাল মেডিসিনে’ প্রকাশিত আরেকটি গবেষণা প্রতিবেদনে দাবি করা হয়েছে, মানুষের শরীরে অক্সিজেন পরিমাপক যন্ত্র যা পালস্ অক্সিমিটার নামে পরিচিত, সেটি শেতাঙ্গদের তুলনায় কৃষ্ণাঙ্গ রোগীদের ক্ষেত্রে কম নির্ভরযোগ্য। ঐ গবেষণায় দেখা গেছে, নিম্ন অক্সিজেন নির্ণয়ে শেতাঙ্গদের তুলনায় পালস্ অক্সিমিটার কৃষ্ণাঙ্গদের ক্ষেত্রে অনেক বেশি ভুল রিডিং দিয়েছে। শেতাঙ্গ রোগীদের ক্ষেত্রে এটি ৩.৬ শতাংশ, অপরদিকে কৃষ্ণাঙ্গদের ক্ষেত্রে এটি ১১.৭ শতাংশ। এর কারণ হিসেবে বলা হয়েছে, পালস্ অক্সিমিটার যখন তৈরি করা হয়েছিল, তখন নমুনা হিসেবে শেতাঙ্গদের বেশি ব্যবহার করা হয়েছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত