প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মুক্তিযুদ্ধে মুম্বায়ের জুতা পালিশওয়ালারা আয়ের টাকা শরণার্থীদের দিয়েছিলেন

ফেসবুক থেকে: আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় ভারতের মহারাষ্ট্র রাজ্যের রাজধানী তৎকালীন বোম্বে শহর যা আজকের মুম্বাই। সেই শহরের জুতা পালিশ ওয়ালাদের একটি মহৎ উদ্যোগ। তাদের প্রতি রইলো বিনম্র শ্রদ্ধা আর ভালোবাসা।

মুম্বাই শহরের জুতা পালিশ ওয়ালারা তাদের একদিনের আয় বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের শরনার্থীদের তহবিলে দেওয়ার ঘোষণা দিয়ে তাদের ব্যানারে যা লিখেছিলো।

“we shine shoes to help heal the bruise of Bangladesh refugees ”

মুম্বাই শহরের এই মহৎ উদ্দ্যোগের সেই ব্যানারে লেখা দেখে অনেক মানুষ তাদের জুতা কালি করতে আসেন। তারা হয়তো এমনিতে দারিদ্র ছিলো, তবে বাংলাদেশের শরনার্থীদের জন্য তাদের এই উদ্দ্যোগ তাদের সামান্য সামর্থ্য থেকে প্রশংসনীয়। দরিদ্র জনগোষ্ঠীর মনও যে মানবতার উদারতায় পূর্ণ থাকে, তারই জীবন্ত ইতিহাস এই ছবি। ছবিটি যদিও বাংলাদেশের না, তবে মুক্তি যুদ্ধের সময় বিশ্বব্যাপী বিভিন্ন দেশের জনগণের ভালোবাসার সাথে জড়িত একটি গুরুত্বপূর্ণ ছবি।

এই স্মৃতিচারণ যা ক্ষণিকের জন‍্য হলেও নিয়ে যায় আমদের মহান মুক্তিযুদ্ধের লোমহর্ষক সেই দিনগুলো তে। মুক্তিযুদ্ধ পরবর্তী বাংলাদেশ পুণঃগঠনে ভারত যে ভাবে সাহায‍্য সহযোগীতা করেছিলো,তাতে তাদের প্রতি স্বভাবতই একটা কৃতজ্ঞতাবোধ কাজ করে আমার। আমার ছোট মেয়ের চিকিৎসার জন্য দেশের বাইরে প্রতিবেশী দেশ ভারতে যাওয়া। বহুদিনের স্বপ্ন পূরণের সুযোগ হয় এই প্রথম বিদেশ ভ্রমণে। প্রয়োজনীয় কাগজপত্র হাতে পাবার পর জেট এয়ার ওয়েজের বিমানে রওনা হই। দিল্লি এয়ারপোর্টে নামার পর কঠোর নিরাপত্তা গন্ডী পার হতেই, আমার সব দেখা শুনা শুরু হয় দিল্লী আর মুম্বাই কে মুগ্ধতা নিয়ে।
জেমী হাফিজ।
১৮/১২/২০২০

 

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত