প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] গজারিয়ায় প্রায় ৮১ কোটি টাকা ব্যয় সড়ক উন্নয়নের কাজ শেষ না হতেই হেলে পড়ছে গাইডওয়াল

নেয়ামূল হক নয়ন: [২] মুন্সীগঞ্জের গজারিয়া উপজেলার প্রধান সড়ক (গজারিয়া থেকে মুন্সিগঞ্জ) প্রশস্ত ও উন্নয়নে অগ্রযাত্রায় ব্যয় হচ্ছে ৮০ কোটি ৫৮ লক্ষ টাকা। সড়কের উন্নয়ন কাজ আগামী ৩১ ডিসেম্বরের শেষ হওয়ার কথা। সরজমিনে গিয়ে দেখা যায় একপাশে চলছে কাজ, অন্য পাশে ফাটল ধরেছে রাস্তা ও হেলে পড়ছে গাইডওয়াল।

[৩] এমন অবস্থা কাজের মান নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন স্থানীয়রা উপজেলা প্রশাসনের নিকট অভিযোগ দিয়েছেন।

[৪] প্রায় দুই বছর মেয়াদী মুন্সিগঞ্জ গজারিয়া উপজেলা হয়ে লঞ্চঘাট পর্যন্ত রাস্তাটির মানোন্নয়নের কাজের উদ্বোধন করা হয় ২০১৮ সালের ২২ সেপ্টেম্বর । ১২ দশমিক ৬০ কিলোমিটার দীর্ঘ সড়কের প্রশস্তকরণ ও মানোন্নয়ন ছাড়া ৪টি ব্রিজ ও একটি কালভার্ট নির্মাণ কাজ শেষের পথে। গাইড ওয়াল হেলে পড়ার জন্য ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের অতিরিক্ত লাভের মনোভাবকে দায় করেছেন তারা।

[৫] এ পথে নিয়মিত যাত্রীদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, যে কাজের মান নিয়ে প্রথম থেকেই তাদের মনে প্রশ্ন ছিলো।

[৬] রাস্তার কাজ চলমান অবস্থায় দুই পাশের গাইড ওয়াল (উঁচু জায়গায় সড়ক নির্মাণ হলে নিচের মাটি ধরে রাখার দেয়াল) অনেক জায়গায় হেলে পড়েছে। গজারি গাছ ও সিমেন্টের পিলার দিয়ে ঠেস দেয়া হয়েছে। প্রধান সড়কের দুই পাশে তৈরি হয়েছে বড় বড় গর্ত। এতে রাস্তার বিভিন্ন অংশ ভেঙে যেতে পারে বলে আশঙ্কা তাদের।

[৭] ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মেসার্স মাসুদ হাইটেক ইঞ্জিনিয়ারিং লিমিটেডের কর্মকর্তাদের সঙ্গে বিষয়টি নিয়ে কথা বলে জানাযায়, বর্ষাকালে বলগেটের এমপ্লোয়ার (পাখার) ঘূর্ণায়নের কারণে গাইড ওয়ালের নিচের মাটি সরে যাওয়ায় তা ডেবে গেছে। এ বিষয়ে তখনি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে অবগত করলে সঙ্গে সঙ্গে অভিযান চালিয়ে ড্রেজার কর্তৃপক্ষকে আর্থিক জরিমানা ও নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়।

[৮] প্রকল্পে কর্মরত শ্রমিকরা জানান, আপাতত সড়কের দুই ধারের ফাটল বন্ধ করতে সেখানে সিমেন্ট ও পাথর কুচি দিয়ে ঢালাই করে দিচ্ছে।

[৯] সড়কের বিভিন্ন জায়গা ঘুরে দেখা গেছে, সড়কটি চরপাথালিয়া, শ্রীনগর মোড় হইতে, মাথাভাঙ্গা এলাকায় গাইড ওয়াল হেলে পড়েছে।

[১০] উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হাসান সাদী জানান, স্থানীয়ারা বিষয়টি উপজেলা প্রশাসনকে জানিয়েছেন, ঘটনাস্থল পরিদর্শন করা হয়েছে। সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তর (সওজ) কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি জানানো হয়েছে এবং তারা জানিয়েছে, ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান ঠিক করে দিচ্ছে । গাইড ওয়ালটি নতুন মাটির উপর হওয়ার কারণে এ ধরনের ত্রুটি হতে পারে। পরবর্তী সময়ে সংস্কার করলে এটি ঠিক হয়ে যাবে।

[১১] উপসহকারী প্রকৌশলী মনির হোসেন বলেন, গাইড ওয়ালের দৈর্ঘ্য পূর্বপরিকল্পনা অনুযায়ী ৩ মিটার আছে। পানির স্রোতের ধাক্কায়া মাটি সরে যাওয়ায় গাইডওয়াল হেলে পড়েছে। ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানকে দিয়ে কাজ হস্তান্তরের আগ পর্যন্ত যতো সমস্যা পর্যায়ক্রমে সমাধান করানো হবে। সম্পাদনা: হ্যাপি

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত