প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] সমুদ্র-স্তরের উচ্চতা বাড়ার জন্য মনুষ দায়ী, এর সমাধান মানুষকেই করতে হবে: জাতিসংঘে বাংলাদেশ

কূটনৈতিক প্রতিবেদক: [২] জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৩৮তম প্লেনারি সভায় ‘সমুদ্র আইন’ বিষয়ক আলোচনায় জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি ও রাষ্ট্রদূত রাবাব ফাতিমা বলেছেন, সমুদ্র আইন বিষয়ে জাতিসংঘ কনভেনশন ও প্যারিস চুক্তির সমন্বয় কার্যকর করতে হবে।

[৩] ক্রমাগত সমুদ্র-স্তরের উত্থান সুপেয় পানি, খাদ্য নিরাপত্তা ও স্বাস্থ্য এবং জীবিকা সম্পর্কিত বিদ্যমান দুরাবস্থাকে আরও বাড়িয়ে তুলতে পারে।

[৪] স্থায়ী প্রতিনিধি বলেন, জাতীয় সমুদ্র সীমার বাইরে সামুদ্রিক জীববৈচিত্র্যের সংরক্ষণ ও টেকসই ব্যবহারকল্পে আন্তর্জাতিকভাবে বাধ্যতামূলক আইনি দলিল প্রণয়নের কাজ দ্রুত সম্পন্ন করতে হবে।

[৫] বঙ্গোপসাগরে বর্ধিত মহীসোপানে বাংলাদেশের সীমা নির্ধারিত হলে বিস্তীর্ণ সমুদ্র এলাকায় প্রাকৃতিক সম্পদ অন্বেষণ করতে সক্ষম হবে বাংলাদেশ।

[৬] রাবাব ফাতিমা আশা প্রকাশ করেন, বর্ধিত মহীসোপানের নতুন সীমা ‘সুনীল অর্থনীতি’র সম্ভাবনাগুলোকে ঘরে তুলতে নতুন সুযোগ এনে দেবে।

[৭] বাংলাদেশ ইতোমধ্যেই ভারত ও মিয়ানমারের সঙ্গে সমুদ্রসীমা বিষয়ক বিরোধের চূড়ান্ত নিষ্পত্তি করতে পেরেছে। এ সংক্রান্ত সংশোধিত সব তথ্য জাতিসংঘে জমা দেওয়া হয়েছে বলেও উল্লেখ করেন।

[৮] তিনি বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকার ২০০৯ সালে জলবায়ু পরিবর্তন কৌশল ও কর্মপরিকল্পনাসহ বিভিন্নমুখী পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে।

[৯] দেশের সমুদ্র-সম্পদের সদ্ব্যবহার, সংরক্ষণ ও বৈজ্ঞানিক ব্যবস্থাপনা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে বাংলাদেশ মেরিটাইম জোন আইন চূড়ান্ত পর্যায়ে রয়েছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত