প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] আমন ধান সংগ্রহে কৃষক পাবে ন্যায্য মূল্য, অনিয়মের ছাড় নেই, জেলা প্রশাসক

আব্দুল্লাহ আল আমীন: [২] আমন মৌসুমে ময়মনসিংহ জেলায় সংগ্রহ অভিযান শুরু করেছে জেলা খাদ্য বিভাগ। সোমবার (৭ ডিসেম্বর) নগরীর র‌্যালীর মোড় খাদ্য গুদাম প্রাঙ্গনে অভ্যন্তরীন আমন সংগ্রহ অভিযান ২০২০-২১ এর উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক মো. মিজানুর রহমান।

[৩] জেলা প্রশাসক মো. মিজানুর রহমান বক্তব্যে বলেন, ধান সংগ্রহে যে কোন অনিয়মকে পেছনে ফেলে খাদ্য বিভাগে মিলার ও কৃষকবান্ধব পরিবেশ তৈরি হচ্ছে। এবার কৃষকরা ন্যাযমূল্যে ধান বিক্রি করতে পারবে।

[৪] তিনি বলেন, আমন সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্র এবার সম্পূর্ণ হবে। কৃষকরা অনেক সময় ধান দিয়ে ব্যাংক থেকে টাকা উত্তোলনের প্রক্রিয়ার জন্য ধান দিতে অনাগ্রহ দেখায়। তবে নগদ টাকা দেয়ার ব্যবস্থা করতে পারলে কৃষকরা আরও উদ্বুদ্ধ হবে। ফুড ইন্সপেক্টরদের সততার চর্চা করার জন্য অনুরোধ জানান তিনি। তিনি আরও জানান, এবার বড়দিনে চাল না দিয়ে আমরা নগর টাকা দেয়ার ব্যবস্থা করছি।

[৫] জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক জহিরুল ইসলাম বলেন, সরকার চাল আমদানি করছে। তারপরও কৃষকদের কাছ ধান সংগ্রহ অভিযান চলছে। এক্ষেত্রে আমাদের কৃষকরা তাদের ফলনের সঠিক মূল্য পাবে।

[৬] জেলা চাতাল মালিক সমিতির সভাপতি খলিলুর রহমান বলেন, অন্যন্য জেলায় চাল কেনা না হলেও ময়মনসিংহে হচ্ছে। এ জন্য ডিসি ফুট ও জেলা প্রশাসক মহোদয়ের কৃতিত্ব অপরিসীম। আমরা মিলাররা আশাবাদী চাল সংগ্রহেও সফল হবো।

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন, ময়মনসিংহ সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. সাইফুল ইসলাম। এতে উপস্থিত ছিলেন সদর খাদ্যগুদাম ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জান্নাতুল ফেরদৌস খান, সদর উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক হামুনুর রহমান পলাশ,অন্যন্য মিলার মালিকবৃন্দ। কৃষকরা ন্যাযমূল্যে ধান দিতে পারবে।

[৭] তিনি বলেন, আমন সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্র আশা করি এবার সম্পূর্ণ হবে। কৃষকরা অনেক সময় ধান দিয়ে ব্যাংক থেকে টাকা নেয়ার প্রক্রিয়ার জন্য ধান দিতে অনাগ্রহ দেখায়। তবে নগদ টাকা দেয়ার ব্যবস্থা করতে পারলে কৃষকরা আরও উদ্বুদ্ধ হবে। ফুড ইন্সপেক্টরদের সততার চর্চা করার জন্য অনুরোধ জানান তিনি। তিনি আরও জানান, এবার বড়দিনে চাল না দিয়ে আমরা নগর টাকা দেয়ার ব্যবস্থা করছি।

[৮] জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক জহিরুল ইসলাম বলেন, সরকার চাল আমদানি করছে। তারপরও কৃষকদের কাছ ধান সংগ্রহ অভিযান চলছে। এক্ষেত্রে আমাদের কৃষকরা তাদের ফলনের সঠিক মূল্য পাবে।

[৯] জেলা চাতাল মালিক সমিতির সভাপতি খলিলুর রহমান বলেন, অন্যন্য জেলায় চাল কেনা না হলেও ময়মনসিংহে হচ্ছে। এ জন্য ডিসি ফুট ও জেলা প্রশাসক মহোদয়ের কৃতিত্ব অপরিসীম। আমরা মিলাররা আশাবাদী চাল সংগ্রহেও সফল হবো।

[১০] অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন, ময়মনসিংহ সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. সাইফুল ইসলাম। এতে উপস্থিত ছিলেন সদর খাদ্যগুদাম ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জান্নাতুল ফেরদৌস খান, সদর উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক হামুনুর রহমান পলাশ, অন্যন্য মিলার মালিকবৃন্দ। সম্পাদনা: সাদেক আলী

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত